আজ রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন দিন
জাতীয়, আঞ্চলিক, স্থানীয় পত্রিকাসহ অনলাইন পোর্টালে যে কোন ধরনের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন। মেসার্স রুকাইয়া এড ফার্ম -01711 211241

মদ্যপ ছিলেন শিবা শানু, মারামারিতে নেতৃত্ব দেন জয় চৌধুরী

  • রিপোর্টার
  • আপডেট সময়: ০১:৪১:১৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪
  • ৩৪ বার পড়া হয়েছে

শিল্পী সমিতির নব-নির্বাচিতদের নিয়ে মঙ্গলবার বিকেল চারটায় এফডিসিতে শপথ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। বিকেলের এই অনুষ্ঠান শেষ হতে না হতে শিল্পী সমিতির সদস্য ও সাংবাদিক–ইউটিউবারদের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। শুধু হাতাহাতিই নয়, চেয়ার ছোড়ার মতো ঘটনাও ঘটেছে। এতে আহত হয়েছে ১০ সাংবাদিক।

ঘটনার সূত্রপাত যেভাবে :

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাতে জানা গেছে, শপথ গ্রহণ শেষে সমিতির অফিসে খবরের কাগজ পত্রিকার এক সাংবাদিক সাক্ষাৎকার নিতে চান ময়ূরীর মেয়ের। ময়ূরীর মেয়েকে প্রশ্ন করেন আপনি আপনার মায়ের সিনেমা দেখেন কি না। দেখলে কেমন লাগে। ময়ূরীর মেয়েকে এমন প্রশ্ন করাতেই রেগে যান খল অভিনেতা শিবা শানু। তিনি সাংবাদিককে বেরিয়ে যেতে বলেন। না যেতে চাইলে তাকে ধাক্কা দিয়ে অফিসে থেকে বের করে নিয়ে যান। এসময় কয়েকজন সাংবাদিক সেখানে উপস্থিত হয়ে শিবা শানুকে থামাতে চান। এতেই শুরু হয় হট্টগোল। এ সময় তখনই শিল্পী সমিতির আরেক নেতা চিত্রনায়ক জয় চৌধুরী গালি দিয়ে ‘মার মার’ বলে তেড়ে যান সাংবাদিকদের দিকে। শুরু হয় সাংবাদিক ও শিল্পীদের মধ্যে তুমুল মারামারি। এরপরই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়। পুরো এফডিসি পরিণত হয় রণক্ষেত্রে। মারামারিতে রক্তাক্ত হন কয়েকজন সাংবাদিক।

মদ্যপ ছিলেন শিবা শানু :

হামলার শিকার হওয়া এক সাংবাদিক জানান, অসংলগ্ল আচরণ ছিলো শিবা শানুর। তিনি মদ্যপ ছিলেন। তার থেকে মদের গন্ধও আসছিল। তিনি যে অসংলগ্ন আচরণ করছিলেন ভিডিও ফুটেজ দেখলে তার প্রমাণ পাওয়া যাবে।

১০ জন আহত হোন :

মারামারির ঘটনায় দৈনিক খবরের কাগজের বিনোদন প্রতিবেদক মিঠুন আল মামুন, বাংলাভিশনের ক্যামেরাপারসনসহ ১০ জনের মতো সংবাদকর্মী ও ইউটিউবার আহত হয়েছেন। আহত ব্যক্তিদের প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আহত মিঠুন আল মামুন বলেন, ‘কোনো কারণ ছাড়াই আমাদের ওপর হামলা হয়েছে। শিবা শানু ও জয় চৌধুরী অশ্লীল ভাষায় বলে, (প্রকাশের অযোগ্য শব্দ) ধর, তারপরই মারামারি শুরু হয়। হামলাকারী আমাদের ক্যামেরা ভেঙে দিয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে ব্যবহৃত ফোনও চুরি হয়ে গেছে।’

২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম সাংবাদিকদের :

মারধরের ঘটনায় শিল্পী সমিতিকে ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিয়েছেন সাংবাদিকরা। মঙ্গলবার (২৩ এপ্রিল) রাতে গণমাধ্যমকর্মীদের একটি প্রতিনিধিদল চলচ্চিত্র সমতির ভেতরে গিয়ে উপস্থিত নেতাকর্মীদের সঙ্গে কথা বলেছেন। যেখানে উপস্থিত ছিলেন শিল্পী সমিতির বর্তমান কমিটির সভাপতি মিশা সওদাগর। তিনি সাংবাদিকদের ২৪ ঘন্টার আল্টিমেটাম মেনে নিয়েছেন। পাশাপাশি পুরো ঘটনায় সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে জানিয়েছেন।

ডিপজল-মিশা সওদাগরের দুঃখ প্রকাশ :

মারামারি ও হাতাহাতির ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি। এমনকি যত দ্রুত সম্ভব এ ঘটনায় দায়ী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের অঙ্গীকারও করেছে সংগঠনটি। সংগঠনের সভাপতি মিশা সওদাগরের পাঠানো লিখিত বক্তব্যে এমনটি জানানো হয়েছে।চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সভাপতি মিশা সওদাগর ও সাধারণ সম্পাদক মনোয়ার হোসেন ডিপজলের পক্ষ থেকে পাঠানো এই চিঠিতে জানানো হয়েছে, ‘আজ মঙ্গলবার বিকেল পাঁচটায় বিএফডিসির বাগানে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সদ্য নির্বাচিত কমিটির বিজয় উপলক্ষে অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সেখানে আমাদের আমন্ত্রণে বিভিন্ন গণমাধ্যমের সাংবাদিক ভাইবোনেরা সংবাদ গ্রহণ করতে এসেছিলেন। তখন অনাহূত পরিস্থিতিতে সাংবাদিকদের সঙ্গে শিল্পী সমিতির কার্যনির্বাহী কমিটির কতিপয় নির্বাচিত সদস্য ও সাধারণ সদস্যদের হাতাহাতি হয়। আমরা জানতে পেরেছি, এ ঘটনায় বেশ কজন সাংবাদিক আহত হয়েছেন, যা আমাদের ব্যথিত করেছে। আমরা এ ঘটনার জন্য সব গণমাধ্যমের সাংবাদিক ভাইবোনদের কাছে আন্তরিকভাবে দুঃখ প্রকাশ করছি। পাশাপাশি যত দ্রুত সম্ভব এ ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে যাচ্ছি।’

ট্যাগস:

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

মদ্যপ ছিলেন শিবা শানু, মারামারিতে নেতৃত্ব দেন জয় চৌধুরী

আপডেট সময়: ০১:৪১:১৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪

শিল্পী সমিতির নব-নির্বাচিতদের নিয়ে মঙ্গলবার বিকেল চারটায় এফডিসিতে শপথ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। বিকেলের এই অনুষ্ঠান শেষ হতে না হতে শিল্পী সমিতির সদস্য ও সাংবাদিক–ইউটিউবারদের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। শুধু হাতাহাতিই নয়, চেয়ার ছোড়ার মতো ঘটনাও ঘটেছে। এতে আহত হয়েছে ১০ সাংবাদিক।

ঘটনার সূত্রপাত যেভাবে :

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাতে জানা গেছে, শপথ গ্রহণ শেষে সমিতির অফিসে খবরের কাগজ পত্রিকার এক সাংবাদিক সাক্ষাৎকার নিতে চান ময়ূরীর মেয়ের। ময়ূরীর মেয়েকে প্রশ্ন করেন আপনি আপনার মায়ের সিনেমা দেখেন কি না। দেখলে কেমন লাগে। ময়ূরীর মেয়েকে এমন প্রশ্ন করাতেই রেগে যান খল অভিনেতা শিবা শানু। তিনি সাংবাদিককে বেরিয়ে যেতে বলেন। না যেতে চাইলে তাকে ধাক্কা দিয়ে অফিসে থেকে বের করে নিয়ে যান। এসময় কয়েকজন সাংবাদিক সেখানে উপস্থিত হয়ে শিবা শানুকে থামাতে চান। এতেই শুরু হয় হট্টগোল। এ সময় তখনই শিল্পী সমিতির আরেক নেতা চিত্রনায়ক জয় চৌধুরী গালি দিয়ে ‘মার মার’ বলে তেড়ে যান সাংবাদিকদের দিকে। শুরু হয় সাংবাদিক ও শিল্পীদের মধ্যে তুমুল মারামারি। এরপরই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়। পুরো এফডিসি পরিণত হয় রণক্ষেত্রে। মারামারিতে রক্তাক্ত হন কয়েকজন সাংবাদিক।

মদ্যপ ছিলেন শিবা শানু :

হামলার শিকার হওয়া এক সাংবাদিক জানান, অসংলগ্ল আচরণ ছিলো শিবা শানুর। তিনি মদ্যপ ছিলেন। তার থেকে মদের গন্ধও আসছিল। তিনি যে অসংলগ্ন আচরণ করছিলেন ভিডিও ফুটেজ দেখলে তার প্রমাণ পাওয়া যাবে।

১০ জন আহত হোন :

মারামারির ঘটনায় দৈনিক খবরের কাগজের বিনোদন প্রতিবেদক মিঠুন আল মামুন, বাংলাভিশনের ক্যামেরাপারসনসহ ১০ জনের মতো সংবাদকর্মী ও ইউটিউবার আহত হয়েছেন। আহত ব্যক্তিদের প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আহত মিঠুন আল মামুন বলেন, ‘কোনো কারণ ছাড়াই আমাদের ওপর হামলা হয়েছে। শিবা শানু ও জয় চৌধুরী অশ্লীল ভাষায় বলে, (প্রকাশের অযোগ্য শব্দ) ধর, তারপরই মারামারি শুরু হয়। হামলাকারী আমাদের ক্যামেরা ভেঙে দিয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে ব্যবহৃত ফোনও চুরি হয়ে গেছে।’

২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম সাংবাদিকদের :

মারধরের ঘটনায় শিল্পী সমিতিকে ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিয়েছেন সাংবাদিকরা। মঙ্গলবার (২৩ এপ্রিল) রাতে গণমাধ্যমকর্মীদের একটি প্রতিনিধিদল চলচ্চিত্র সমতির ভেতরে গিয়ে উপস্থিত নেতাকর্মীদের সঙ্গে কথা বলেছেন। যেখানে উপস্থিত ছিলেন শিল্পী সমিতির বর্তমান কমিটির সভাপতি মিশা সওদাগর। তিনি সাংবাদিকদের ২৪ ঘন্টার আল্টিমেটাম মেনে নিয়েছেন। পাশাপাশি পুরো ঘটনায় সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে জানিয়েছেন।

ডিপজল-মিশা সওদাগরের দুঃখ প্রকাশ :

মারামারি ও হাতাহাতির ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি। এমনকি যত দ্রুত সম্ভব এ ঘটনায় দায়ী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের অঙ্গীকারও করেছে সংগঠনটি। সংগঠনের সভাপতি মিশা সওদাগরের পাঠানো লিখিত বক্তব্যে এমনটি জানানো হয়েছে।চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সভাপতি মিশা সওদাগর ও সাধারণ সম্পাদক মনোয়ার হোসেন ডিপজলের পক্ষ থেকে পাঠানো এই চিঠিতে জানানো হয়েছে, ‘আজ মঙ্গলবার বিকেল পাঁচটায় বিএফডিসির বাগানে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সদ্য নির্বাচিত কমিটির বিজয় উপলক্ষে অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সেখানে আমাদের আমন্ত্রণে বিভিন্ন গণমাধ্যমের সাংবাদিক ভাইবোনেরা সংবাদ গ্রহণ করতে এসেছিলেন। তখন অনাহূত পরিস্থিতিতে সাংবাদিকদের সঙ্গে শিল্পী সমিতির কার্যনির্বাহী কমিটির কতিপয় নির্বাচিত সদস্য ও সাধারণ সদস্যদের হাতাহাতি হয়। আমরা জানতে পেরেছি, এ ঘটনায় বেশ কজন সাংবাদিক আহত হয়েছেন, যা আমাদের ব্যথিত করেছে। আমরা এ ঘটনার জন্য সব গণমাধ্যমের সাংবাদিক ভাইবোনদের কাছে আন্তরিকভাবে দুঃখ প্রকাশ করছি। পাশাপাশি যত দ্রুত সম্ভব এ ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে যাচ্ছি।’