আজ রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন দিন
জাতীয়, আঞ্চলিক, স্থানীয় পত্রিকাসহ অনলাইন পোর্টালে যে কোন ধরনের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন। মেসার্স রুকাইয়া এড ফার্ম -01711 211241

মৎস্য ঘেরে দূর্বৃত্তদের বিষ প্রয়োগে ১০ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি

  • রিপোর্টার
  • আপডেট সময়: ০৯:১৪:২৬ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪
  • ৫৭ বার পড়া হয়েছে

oplus_0

সাইফুল আজম খান: সাতক্ষীরা জেলার তালা উপজেলার ধানদিয়া ইউনিয়নের আলিপুর গ্রাম সংলগ্ন গন মৎস্য ঘেরে অজ্ঞাত ব্যাক্তিদের দেওয়া বিষ প্রয়োগে ১০ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি হয়েছে স্থানীয় মৎস্য ঘের চাষীদের। এ বিষয়ে সরেজমিন তথ্য সংগ্রহে জানা যায়, গত রবিবার ভোর ৪ টার দিকে কে বা কারা আলিপুর মাঠের গনঘেরের খালের পানিতে গ্যাস ট্যাবলেট ও বিষ প্রয়োগ করে চলে যায়। সকাল হতে না হতেই মাছ ছটপট করতে করতে মারা যেতে থাকে। ঘটনাটি শুনে এলাকার লোকজন ভরে যায় মৎস্য ঘের এলাকায়। এবিষয়ে ঘেরের কর্মচারী হায়দার ও রফিকুল বলেন, আমরা এই ঘের টি দেখাশোনা করি। প্রতিদিনের ন্যায় আজ সকালে উঠে দেখি পানিতে মাছ মাথাযয় মাথায় লেগে গেছে। আমরা ভাবলাম তাপমাত্রা বেড়ে গেছে বিধায় মাছ ভাসতে শুরু করেছে। অথচ সকাল হতেই দেখা গেল, চিংড়ি মাছ রুই মাছ,কাতলা মাছ, তেলাপিয়া মাছ, সিল্ভার কার্প পুটি মাছ সহ বিভিন্ন প্রজাতির সব ধরনের মাছ ছটফট ছটফট করছে। তখন আমাদের সন্দেহ হলে ঘেরের এদিক ওদিক ছোটা ছুটি করতে থাকি। পানিতে প্রচুর পরিমাণ বিষের গ্যাস পায় ও মৎস ঘেরের ভেড়ির ধারে বিভিন্ন জায়গায় গ্যাস ট্যাবলেট এর নমুনা দেখতে পাই। তখন আমাদের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক সহ সকলকে খবর দিলে তারা এসে তড়িঘড়ি করে কিছু মাছ তুলে বিক্রয় করেছে। বেশিরভাগ মাছ পচে পানির তলায় কাঁদার সাথে মিশে গিয়েছে। চিংড়ি মাছ গুলো মরে শেষ। কে বা কারা এই বিষ দিছে এ বিষয়ে আমরা কিছু জানি না। আলিপুরের গণ ঘেরের সভাপতি, মান্নান খাঁ – সাধারণ সম্পাদক কামরুল ইসলাম খাঁ, সালাম খাঁ, মান্নান সরদার, আব্দুর রাজ্জাকসহ গণঘেরের শেয়ারে থাকা সদস্যগন বলেন, আমরা দশ বছর যাবত এখানে সবাই মিলে একত্রে মৎস্য চাষ (ঘের)করে আসছি। কখনো কোন সময় বিষ দিয়ে মাছ মারার এমন ঘটনা ঘটেনি।আমাদের শেয়ারে থাকা সদস্যদের মধ্যে কমবেশি গোলযোগ রয়েছে। তবে কোন কারণে কে বা কারা ভোর রাতে ঘেরের ক্যাণেলের পানিতে বিষ দিয়ে মাছ মেরে ফেলল তা আমরা সঠিকভাবে বলতে পারছিনা। আমরা কাউকে সন্দেহ করছি না। আমরা সকল সদস্য (শেয়ার) গন এক সাথে বসে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে, যে এই কাজ করেছে তাকে শনাক্তের জন্য আইনের আশ্রয় নেব। মৎস্য ঘেরের সেক্রেটারি কামরুল ইসলাম বলেন, আমরা একত্রে প্রায় ৬৬ জনের মত লোকজন মিলে এই ঘের পরিচালনা করি । ১৩৫ বিঘার মত জমি আছে আমাদের ঘেরের ভিতর। বিষ দিয়ে মাছ মেরে ফেলার ঘটনা এর আগে কখনো ঘটেনি। আমরা সকলে মিলে সিদ্ধান্ত নিয়ে পাটকেলঘাটা থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করার প্রস্তুতি নিচ্ছি। সাথে সাথে ঘেরে বিষ দিয়ে মাছ হত্যা করার ঘটনা সঠিক তদন্ত করে প্রকৃত অপরাধী কে আইনের আওতায় এনে শাস্তি দেওয়ার জন্য সাতক্ষীরা জেলা পুলিশ সুপার ও জেলা প্রশাসকের হস্তক্ষেপ কামনা করেছি।

ট্যাগস:

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

মৎস্য ঘেরে দূর্বৃত্তদের বিষ প্রয়োগে ১০ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি

আপডেট সময়: ০৯:১৪:২৬ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪

সাইফুল আজম খান: সাতক্ষীরা জেলার তালা উপজেলার ধানদিয়া ইউনিয়নের আলিপুর গ্রাম সংলগ্ন গন মৎস্য ঘেরে অজ্ঞাত ব্যাক্তিদের দেওয়া বিষ প্রয়োগে ১০ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি হয়েছে স্থানীয় মৎস্য ঘের চাষীদের। এ বিষয়ে সরেজমিন তথ্য সংগ্রহে জানা যায়, গত রবিবার ভোর ৪ টার দিকে কে বা কারা আলিপুর মাঠের গনঘেরের খালের পানিতে গ্যাস ট্যাবলেট ও বিষ প্রয়োগ করে চলে যায়। সকাল হতে না হতেই মাছ ছটপট করতে করতে মারা যেতে থাকে। ঘটনাটি শুনে এলাকার লোকজন ভরে যায় মৎস্য ঘের এলাকায়। এবিষয়ে ঘেরের কর্মচারী হায়দার ও রফিকুল বলেন, আমরা এই ঘের টি দেখাশোনা করি। প্রতিদিনের ন্যায় আজ সকালে উঠে দেখি পানিতে মাছ মাথাযয় মাথায় লেগে গেছে। আমরা ভাবলাম তাপমাত্রা বেড়ে গেছে বিধায় মাছ ভাসতে শুরু করেছে। অথচ সকাল হতেই দেখা গেল, চিংড়ি মাছ রুই মাছ,কাতলা মাছ, তেলাপিয়া মাছ, সিল্ভার কার্প পুটি মাছ সহ বিভিন্ন প্রজাতির সব ধরনের মাছ ছটফট ছটফট করছে। তখন আমাদের সন্দেহ হলে ঘেরের এদিক ওদিক ছোটা ছুটি করতে থাকি। পানিতে প্রচুর পরিমাণ বিষের গ্যাস পায় ও মৎস ঘেরের ভেড়ির ধারে বিভিন্ন জায়গায় গ্যাস ট্যাবলেট এর নমুনা দেখতে পাই। তখন আমাদের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক সহ সকলকে খবর দিলে তারা এসে তড়িঘড়ি করে কিছু মাছ তুলে বিক্রয় করেছে। বেশিরভাগ মাছ পচে পানির তলায় কাঁদার সাথে মিশে গিয়েছে। চিংড়ি মাছ গুলো মরে শেষ। কে বা কারা এই বিষ দিছে এ বিষয়ে আমরা কিছু জানি না। আলিপুরের গণ ঘেরের সভাপতি, মান্নান খাঁ – সাধারণ সম্পাদক কামরুল ইসলাম খাঁ, সালাম খাঁ, মান্নান সরদার, আব্দুর রাজ্জাকসহ গণঘেরের শেয়ারে থাকা সদস্যগন বলেন, আমরা দশ বছর যাবত এখানে সবাই মিলে একত্রে মৎস্য চাষ (ঘের)করে আসছি। কখনো কোন সময় বিষ দিয়ে মাছ মারার এমন ঘটনা ঘটেনি।আমাদের শেয়ারে থাকা সদস্যদের মধ্যে কমবেশি গোলযোগ রয়েছে। তবে কোন কারণে কে বা কারা ভোর রাতে ঘেরের ক্যাণেলের পানিতে বিষ দিয়ে মাছ মেরে ফেলল তা আমরা সঠিকভাবে বলতে পারছিনা। আমরা কাউকে সন্দেহ করছি না। আমরা সকল সদস্য (শেয়ার) গন এক সাথে বসে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে, যে এই কাজ করেছে তাকে শনাক্তের জন্য আইনের আশ্রয় নেব। মৎস্য ঘেরের সেক্রেটারি কামরুল ইসলাম বলেন, আমরা একত্রে প্রায় ৬৬ জনের মত লোকজন মিলে এই ঘের পরিচালনা করি । ১৩৫ বিঘার মত জমি আছে আমাদের ঘেরের ভিতর। বিষ দিয়ে মাছ মেরে ফেলার ঘটনা এর আগে কখনো ঘটেনি। আমরা সকলে মিলে সিদ্ধান্ত নিয়ে পাটকেলঘাটা থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করার প্রস্তুতি নিচ্ছি। সাথে সাথে ঘেরে বিষ দিয়ে মাছ হত্যা করার ঘটনা সঠিক তদন্ত করে প্রকৃত অপরাধী কে আইনের আওতায় এনে শাস্তি দেওয়ার জন্য সাতক্ষীরা জেলা পুলিশ সুপার ও জেলা প্রশাসকের হস্তক্ষেপ কামনা করেছি।