আজ রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন দিন
জাতীয়, আঞ্চলিক, স্থানীয় পত্রিকাসহ অনলাইন পোর্টালে যে কোন ধরনের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন। মেসার্স রুকাইয়া এড ফার্ম -01711 211241

পাকিস্তানে ঢুকে সন্ত্রাসীদের হত্যার হুমকি ভারতের

  • রিপোর্টার
  • আপডেট সময়: ০৭:১৪:৫৪ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ৬ এপ্রিল ২০২৪
  • ৪২ বার পড়া হয়েছে

ভারতে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের চেষ্টার পর সীমান্ত পাড়ি দিয়ে পাকিস্তানে পালিয়ে গেলেও সে দেশে প্রবেশ করে সন্ত্রাসীদের হত্যার কথা জানিয়েছেন ভারতীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। গতকাল শুক্রবার (৫ এপ্রিল) ভারতীয় সংবাদমাধ্যম সিএনএন নিউজ ১৮কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি এই হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন। গত বৃহস্পতিবার (৪ এপ্রিল) ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম গার্ডিয়ানের এক প্রতিবেদনে বিদেশের মাটিতে অবস্থানরত সন্ত্রাসীদের নির্মূল করার বৃহত্তর পরিকল্পনার অংশ হিসেবে ভারত সরকার ২০২০ সাল থেকে পাকিস্তানে ২০ জনকে হত্যা করেছে বলে অভিযোগ তোলা হয়। গার্ডিয়ানের এই প্রতিবেদনের একদিনের মাথায় এই মন্তব্য করলেন ভারতীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী।

গার্ডিয়ানের এই প্রতিবেদনের বিষয়ে মন্তব্য করার জন্য ভারতীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে রয়টার্স যোগাযোগ করলেও কোনো জবাব দেয়নি মন্ত্রণালয়। অন্যদিকে এই বিষয়ে মন্তব্য করতে অস্বীকার করেছে পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। তবে এই প্রতিবেদন সম্পর্কে প্রশ্ন করা হলে রাজনাথ সিং বলেন, যদি তারা (সন্ত্রাসী) পাকিস্তানে পালিয়ে যায়, আমরা তাদের হত্যা করার জন্য পাকিস্তানে প্রবেশ করব। তিনি বলেন, ভারত সবসময় প্রতিবেশী দেশের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রাখতে চায়। কিন্তু কেউ যদি ভারতের দিকে বারবার আড় চোখে তাকায়, ভারতে এসে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড প্রচার করার চেষ্টা করে, আমরা তাদের রেহাই দেব না।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদন অনুযায়ী, ২০১৯ সালে জম্মু ও কাশ্মীরের পুলওয়ামায় ভারতীয় সেন্ট্রাল রিজার্ভ পুলিশ ফোর্সের (সিআরপিএফ) একটি বহরে আত্মঘাতী বোমা হামলার পর থেকে ভারত ও পাকিস্তানের সম্পর্কে অবনতি হয়েছে। এই হামলার সঙ্গে পাকিস্তানভিত্তিক সন্ত্রাসীদের যোগসাজোস থাকায় পাকিস্তানের একটি সন্ত্রাসী ঘাঁটিতে বিমান হামলা পর্যন্ত চালায় ভারত। এ ছাড়া চলতি বছরের শুরুতে পাকিস্তানের মাটিতে দুই পাকিস্তানি নাগরিককে হত্যার সাথে ভারতীয় এজেন্টদের জড়িত থাকার বিশ্বাসযোগ্য প্রমাণ রয়েছে বলে জানিয়েছিল ইসলামাবাদ। যদিও ভারত তখন বলেছিল, এটি মিথ্যা ও বিদ্বেষপূর্ণ অপপ্রচার।

ট্যাগস:

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

পাকিস্তানে ঢুকে সন্ত্রাসীদের হত্যার হুমকি ভারতের

আপডেট সময়: ০৭:১৪:৫৪ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ৬ এপ্রিল ২০২৪

ভারতে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের চেষ্টার পর সীমান্ত পাড়ি দিয়ে পাকিস্তানে পালিয়ে গেলেও সে দেশে প্রবেশ করে সন্ত্রাসীদের হত্যার কথা জানিয়েছেন ভারতীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। গতকাল শুক্রবার (৫ এপ্রিল) ভারতীয় সংবাদমাধ্যম সিএনএন নিউজ ১৮কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি এই হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন। গত বৃহস্পতিবার (৪ এপ্রিল) ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম গার্ডিয়ানের এক প্রতিবেদনে বিদেশের মাটিতে অবস্থানরত সন্ত্রাসীদের নির্মূল করার বৃহত্তর পরিকল্পনার অংশ হিসেবে ভারত সরকার ২০২০ সাল থেকে পাকিস্তানে ২০ জনকে হত্যা করেছে বলে অভিযোগ তোলা হয়। গার্ডিয়ানের এই প্রতিবেদনের একদিনের মাথায় এই মন্তব্য করলেন ভারতীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী।

গার্ডিয়ানের এই প্রতিবেদনের বিষয়ে মন্তব্য করার জন্য ভারতীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে রয়টার্স যোগাযোগ করলেও কোনো জবাব দেয়নি মন্ত্রণালয়। অন্যদিকে এই বিষয়ে মন্তব্য করতে অস্বীকার করেছে পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। তবে এই প্রতিবেদন সম্পর্কে প্রশ্ন করা হলে রাজনাথ সিং বলেন, যদি তারা (সন্ত্রাসী) পাকিস্তানে পালিয়ে যায়, আমরা তাদের হত্যা করার জন্য পাকিস্তানে প্রবেশ করব। তিনি বলেন, ভারত সবসময় প্রতিবেশী দেশের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রাখতে চায়। কিন্তু কেউ যদি ভারতের দিকে বারবার আড় চোখে তাকায়, ভারতে এসে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড প্রচার করার চেষ্টা করে, আমরা তাদের রেহাই দেব না।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদন অনুযায়ী, ২০১৯ সালে জম্মু ও কাশ্মীরের পুলওয়ামায় ভারতীয় সেন্ট্রাল রিজার্ভ পুলিশ ফোর্সের (সিআরপিএফ) একটি বহরে আত্মঘাতী বোমা হামলার পর থেকে ভারত ও পাকিস্তানের সম্পর্কে অবনতি হয়েছে। এই হামলার সঙ্গে পাকিস্তানভিত্তিক সন্ত্রাসীদের যোগসাজোস থাকায় পাকিস্তানের একটি সন্ত্রাসী ঘাঁটিতে বিমান হামলা পর্যন্ত চালায় ভারত। এ ছাড়া চলতি বছরের শুরুতে পাকিস্তানের মাটিতে দুই পাকিস্তানি নাগরিককে হত্যার সাথে ভারতীয় এজেন্টদের জড়িত থাকার বিশ্বাসযোগ্য প্রমাণ রয়েছে বলে জানিয়েছিল ইসলামাবাদ। যদিও ভারত তখন বলেছিল, এটি মিথ্যা ও বিদ্বেষপূর্ণ অপপ্রচার।