আজ বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন দিন
জাতীয়, আঞ্চলিক, স্থানীয় পত্রিকাসহ অনলাইন পোর্টালে যে কোন ধরনের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন। মেসার্স রুকাইয়া এড ফার্ম -01711 211241

হাফেজদের মাধ্যমে মুসলিম বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হচ্ছে: ধর্মমন্ত্রী

  • রিপোর্টার
  • আপডেট সময়: ০৯:০৮:০৪ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৪ মার্চ ২০২৪
  • ৩৪ বার পড়া হয়েছে

ধর্মমন্ত্রী মো. ফরিদুল হক খান বলেছেন, ‘কুরআনের হাফেজদের মাধ্যমে মুসলিম বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হচ্ছে।’ তিনি আজ জামালপুর সকালে জেলার ইসলামপুরে ফরিদুল হক খান দুলাল অডিটোরিয়ামে আরটিভি আলোকিত কুরআন ২০২৪ প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হাফেজ ইসমাইল হোসেনের সংবর্ধনা এবং আলেম-ওলামাদের সঙ্গে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় একথা বলেন। ফরিদুল হক খান বলেন, ‘প্রতিবছরই বিশ্বের মুসলিম দেশ সৌদি আরব, দুবাই, গাম্বিয়া, ইরান, মিশর, জর্ডান, তুরস্ক, আলজেরিয়া, পাকিস্তান, মালদ্বীপসহ বিভিন্ন দেশে অনুষ্ঠিত হিফজ, কিরাত, তাফসীর ও ইমাম মুবাল্লিগ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে প্রথম, দ্বিতীয়, তৃতীয় স্থানসহ বিভিন্ন স্তরে এদেশের প্রতিযোগীরা পুরস্কার অর্জন করছে। ১৯৯৪ সাল হতে ২০২৪ সাল পর্যন্ত এরূপ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে ১৯০ জনের বেশি প্রতিযোগী আন্তর্জাতিক পুরস্কার অর্জন করেছে। হাফেজদের এই অর্জন আমাদের দেশের জন্য অত্যন্ত গৌরবের।’

মতবিনিময় সভায় উপস্থিত আলেম, ওলামা ও শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে ধর্মমন্ত্রী বলেন, ‘হাফেজ ইসমাইল হোসেনের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে আপনাদেরকে আমন্ত্রণ জানানোর উদ্দেশ্য একটাই। সেটা হলো এই ইসলামপুর থেকে ইসমাইলের মতো অনেক অনেক ইসমাইল গড়ে তোলা যারা ইসলামপুরের মুখ উজ্জ্বল করবে। বাংলাদেশের মুখ উজ্জ্বল করবে। ইসমাইল যদি পারে তাহলে অন্যান্য হাফেজরা পারবে। ইসমাইলের ওস্তাদ যদি পারেন তাহলে অন্যান্য ওস্তাদরাও পারবেন। শুধু প্রয়োজন একাগ্রতা, নিষ্ঠা, অধ্যবসায় এবং অনুশীলন।’ ধর্মমন্ত্রী আরও বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আলেম-ওলামা সমাজকে অত্যন্ত সম্মান ও শ্রদ্ধা করেন। আপনাদের কাছ থেকে আমাদের কিছু প্রত্যাশা আছে। সেই প্রত্যাশা আমাদের ব্যক্তিগত কোনো স্বার্থ হাসিলের জন্য নয়। প্রত্যাশা দেশের জন্য, দেশের মানুষের জন্য। আমরা চাই এমন একটি দেশ যেখানে দুর্নীতি, মজুতদারি, কালোবাজারি ও মুনাফাখোর থাকবে না। মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ থাকবে না। এজন্য আপনাদেরকে এগিয়ে আসতে হবে। মানুষকে বোঝাতে হবে, ধর্মের বিধিবিধান জানাতে হবে। দেশ ভালো থাকলে আমি ভালো থাকবো, আপনিও ভালো থাকবেন। আমার সন্তান ভালো থাকবে, আপনার সন্তানও ভালো থাকবে।’

উপজেলা নির্বাহী অফিসার সিরাজুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় অন্যদের মধ্যে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এস এম জামাল আব্দুন নাছের, ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল খালেক আখন্দ, জামালপুর আইন কলেজের অধ্যক্ষ অ্যাড. আব্দুস ছালাম, ইসলামপুর এম এ সামাদ পারভেজ মেমোরিয়াল ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ জামাল আব্দুল নাসের চৌধুরী চার্লেস প্রমুখ বক্তৃতা করেন। ধর্মমন্ত্রী মো. ফরিদুল হক খান বলেছেন, ‘কুরআনের হাফেজদের মাধ্যমে মুসলিম বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হচ্ছে।’ তিনি আজ জামালপুর সকালে জেলার ইসলামপুরে ফরিদুল হক খান দুলাল অডিটোরিয়ামে আরটিভি আলোকিত কুরআন ২০২৪ প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হাফেজ ইসমাইল হোসেনের সংবর্ধনা এবং আলেম-ওলামাদের সঙ্গে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় একথা বলেন। ফরিদুল হক খান বলেন, ‘প্রতিবছরই বিশ্বের মুসলিম দেশ সৌদি আরব, দুবাই, গাম্বিয়া, ইরান, মিশর, জর্ডান, তুরস্ক, আলজেরিয়া, পাকিস্তান, মালদ্বীপসহ বিভিন্ন দেশে অনুষ্ঠিত হিফজ, কিরাত, তাফসীর ও ইমাম মুবাল্লিগ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে প্রথম, দ্বিতীয়, তৃতীয় স্থানসহ বিভিন্ন স্তরে এদেশের প্রতিযোগীরা পুরস্কার অর্জন করছে। ১৯৯৪ সাল হতে ২০২৪ সাল পর্যন্ত এরূপ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে ১৯০ জনের বেশি প্রতিযোগী আন্তর্জাতিক পুরস্কার অর্জন করেছে। হাফেজদের এই অর্জন আমাদের দেশের জন্য অত্যন্ত গৌরবের।’

মতবিনিময় সভায় উপস্থিত আলেম, ওলামা ও শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে ধর্মমন্ত্রী বলেন, ‘হাফেজ ইসমাইল হোসেনের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে আপনাদেরকে আমন্ত্রণ জানানোর উদ্দেশ্য একটাই। সেটা হলো এই ইসলামপুর থেকে ইসমাইলের মতো অনেক অনেক ইসমাইল গড়ে তোলা যারা ইসলামপুরের মুখ উজ্জ্বল করবে। বাংলাদেশের মুখ উজ্জ্বল করবে। ইসমাইল যদি পারে তাহলে অন্যান্য হাফেজরা পারবে। ইসমাইলের ওস্তাদ যদি পারেন তাহলে অন্যান্য ওস্তাদরাও পারবেন। শুধু প্রয়োজন একাগ্রতা, নিষ্ঠা, অধ্যবসায় এবং অনুশীলন।’ ধর্মমন্ত্রী আরও বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আলেম-ওলামা সমাজকে অত্যন্ত সম্মান ও শ্রদ্ধা করেন। আপনাদের কাছ থেকে আমাদের কিছু প্রত্যাশা আছে। সেই প্রত্যাশা আমাদের ব্যক্তিগত কোনো স্বার্থ হাসিলের জন্য নয়। প্রত্যাশা দেশের জন্য, দেশের মানুষের জন্য। আমরা চাই এমন একটি দেশ যেখানে দুর্নীতি, মজুতদারি, কালোবাজারি ও মুনাফাখোর থাকবে না। মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ থাকবে না। এজন্য আপনাদেরকে এগিয়ে আসতে হবে। মানুষকে বোঝাতে হবে, ধর্মের বিধিবিধান জানাতে হবে। দেশ ভালো থাকলে আমি ভালো থাকবো, আপনিও ভালো থাকবেন। আমার সন্তান ভালো থাকবে, আপনার সন্তানও ভালো থাকবে।’

উপজেলা নির্বাহী অফিসার সিরাজুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় অন্যদের মধ্যে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এস এম জামাল আব্দুন নাছের, ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল খালেক আখন্দ, জামালপুর আইন কলেজের অধ্যক্ষ অ্যাড. আব্দুস ছালাম, ইসলামপুর এম এ সামাদ পারভেজ মেমোরিয়াল ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ জামাল আব্দুল নাসের চৌধুরী চার্লেস প্রমুখ বক্তৃতা করেন। ধর্মমন্ত্রী মো. ফরিদুল হক খান বলেছেন, ‘কুরআনের হাফেজদের মাধ্যমে মুসলিম বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হচ্ছে।’ তিনি আজ জামালপুর সকালে জেলার ইসলামপুরে ফরিদুল হক খান দুলাল অডিটোরিয়ামে আরটিভি আলোকিত কুরআন ২০২৪ প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হাফেজ ইসমাইল হোসেনের সংবর্ধনা এবং আলেম-ওলামাদের সঙ্গে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় একথা বলেন। ফরিদুল হক খান বলেন, ‘প্রতিবছরই বিশ্বের মুসলিম দেশ সৌদি আরব, দুবাই, গাম্বিয়া, ইরান, মিশর, জর্ডান, তুরস্ক, আলজেরিয়া, পাকিস্তান, মালদ্বীপসহ বিভিন্ন দেশে অনুষ্ঠিত হিফজ, কিরাত, তাফসীর ও ইমাম মুবাল্লিগ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে প্রথম, দ্বিতীয়, তৃতীয় স্থানসহ বিভিন্ন স্তরে এদেশের প্রতিযোগীরা পুরস্কার অর্জন করছে। ১৯৯৪ সাল হতে ২০২৪ সাল পর্যন্ত এরূপ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে ১৯০ জনের বেশি প্রতিযোগী আন্তর্জাতিক পুরস্কার অর্জন করেছে। হাফেজদের এই অর্জন আমাদের দেশের জন্য অত্যন্ত গৌরবের।’

মতবিনিময় সভায় উপস্থিত আলেম, ওলামা ও শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে ধর্মমন্ত্রী বলেন, ‘হাফেজ ইসমাইল হোসেনের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে আপনাদেরকে আমন্ত্রণ জানানোর উদ্দেশ্য একটাই। সেটা হলো এই ইসলামপুর থেকে ইসমাইলের মতো অনেক অনেক ইসমাইল গড়ে তোলা যারা ইসলামপুরের মুখ উজ্জ্বল করবে। বাংলাদেশের মুখ উজ্জ্বল করবে। ইসমাইল যদি পারে তাহলে অন্যান্য হাফেজরা পারবে। ইসমাইলের ওস্তাদ যদি পারেন তাহলে অন্যান্য ওস্তাদরাও পারবেন। শুধু প্রয়োজন একাগ্রতা, নিষ্ঠা, অধ্যবসায় এবং অনুশীলন।’ ধর্মমন্ত্রী আরও বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আলেম-ওলামা সমাজকে অত্যন্ত সম্মান ও শ্রদ্ধা করেন। আপনাদের কাছ থেকে আমাদের কিছু প্রত্যাশা আছে। সেই প্রত্যাশা আমাদের ব্যক্তিগত কোনো স্বার্থ হাসিলের জন্য নয়। প্রত্যাশা দেশের জন্য, দেশের মানুষের জন্য। আমরা চাই এমন একটি দেশ যেখানে দুর্নীতি, মজুতদারি, কালোবাজারি ও মুনাফাখোর থাকবে না। মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ থাকবে না। এজন্য আপনাদেরকে এগিয়ে আসতে হবে। মানুষকে বোঝাতে হবে, ধর্মের বিধিবিধান জানাতে হবে। দেশ ভালো থাকলে আমি ভালো থাকবো, আপনিও ভালো থাকবেন। আমার সন্তান ভালো থাকবে, আপনার সন্তানও ভালো থাকবে।’

উপজেলা নির্বাহী অফিসার সিরাজুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় অন্যদের মধ্যে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এস এম জামাল আব্দুন নাছের, ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল খালেক আখন্দ, জামালপুর আইন কলেজের অধ্যক্ষ অ্যাড. আব্দুস ছালাম, ইসলামপুর এম এ সামাদ পারভেজ মেমোরিয়াল ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ জামাল আব্দুল নাসের চৌধুরী চার্লেস প্রমুখ বক্তৃতা করেন।

ট্যাগস:

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

জনপ্রিয় সংবাদ

হাফেজদের মাধ্যমে মুসলিম বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হচ্ছে: ধর্মমন্ত্রী

আপডেট সময়: ০৯:০৮:০৪ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৪ মার্চ ২০২৪

ধর্মমন্ত্রী মো. ফরিদুল হক খান বলেছেন, ‘কুরআনের হাফেজদের মাধ্যমে মুসলিম বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হচ্ছে।’ তিনি আজ জামালপুর সকালে জেলার ইসলামপুরে ফরিদুল হক খান দুলাল অডিটোরিয়ামে আরটিভি আলোকিত কুরআন ২০২৪ প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হাফেজ ইসমাইল হোসেনের সংবর্ধনা এবং আলেম-ওলামাদের সঙ্গে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় একথা বলেন। ফরিদুল হক খান বলেন, ‘প্রতিবছরই বিশ্বের মুসলিম দেশ সৌদি আরব, দুবাই, গাম্বিয়া, ইরান, মিশর, জর্ডান, তুরস্ক, আলজেরিয়া, পাকিস্তান, মালদ্বীপসহ বিভিন্ন দেশে অনুষ্ঠিত হিফজ, কিরাত, তাফসীর ও ইমাম মুবাল্লিগ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে প্রথম, দ্বিতীয়, তৃতীয় স্থানসহ বিভিন্ন স্তরে এদেশের প্রতিযোগীরা পুরস্কার অর্জন করছে। ১৯৯৪ সাল হতে ২০২৪ সাল পর্যন্ত এরূপ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে ১৯০ জনের বেশি প্রতিযোগী আন্তর্জাতিক পুরস্কার অর্জন করেছে। হাফেজদের এই অর্জন আমাদের দেশের জন্য অত্যন্ত গৌরবের।’

মতবিনিময় সভায় উপস্থিত আলেম, ওলামা ও শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে ধর্মমন্ত্রী বলেন, ‘হাফেজ ইসমাইল হোসেনের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে আপনাদেরকে আমন্ত্রণ জানানোর উদ্দেশ্য একটাই। সেটা হলো এই ইসলামপুর থেকে ইসমাইলের মতো অনেক অনেক ইসমাইল গড়ে তোলা যারা ইসলামপুরের মুখ উজ্জ্বল করবে। বাংলাদেশের মুখ উজ্জ্বল করবে। ইসমাইল যদি পারে তাহলে অন্যান্য হাফেজরা পারবে। ইসমাইলের ওস্তাদ যদি পারেন তাহলে অন্যান্য ওস্তাদরাও পারবেন। শুধু প্রয়োজন একাগ্রতা, নিষ্ঠা, অধ্যবসায় এবং অনুশীলন।’ ধর্মমন্ত্রী আরও বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আলেম-ওলামা সমাজকে অত্যন্ত সম্মান ও শ্রদ্ধা করেন। আপনাদের কাছ থেকে আমাদের কিছু প্রত্যাশা আছে। সেই প্রত্যাশা আমাদের ব্যক্তিগত কোনো স্বার্থ হাসিলের জন্য নয়। প্রত্যাশা দেশের জন্য, দেশের মানুষের জন্য। আমরা চাই এমন একটি দেশ যেখানে দুর্নীতি, মজুতদারি, কালোবাজারি ও মুনাফাখোর থাকবে না। মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ থাকবে না। এজন্য আপনাদেরকে এগিয়ে আসতে হবে। মানুষকে বোঝাতে হবে, ধর্মের বিধিবিধান জানাতে হবে। দেশ ভালো থাকলে আমি ভালো থাকবো, আপনিও ভালো থাকবেন। আমার সন্তান ভালো থাকবে, আপনার সন্তানও ভালো থাকবে।’

উপজেলা নির্বাহী অফিসার সিরাজুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় অন্যদের মধ্যে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এস এম জামাল আব্দুন নাছের, ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল খালেক আখন্দ, জামালপুর আইন কলেজের অধ্যক্ষ অ্যাড. আব্দুস ছালাম, ইসলামপুর এম এ সামাদ পারভেজ মেমোরিয়াল ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ জামাল আব্দুল নাসের চৌধুরী চার্লেস প্রমুখ বক্তৃতা করেন। ধর্মমন্ত্রী মো. ফরিদুল হক খান বলেছেন, ‘কুরআনের হাফেজদের মাধ্যমে মুসলিম বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হচ্ছে।’ তিনি আজ জামালপুর সকালে জেলার ইসলামপুরে ফরিদুল হক খান দুলাল অডিটোরিয়ামে আরটিভি আলোকিত কুরআন ২০২৪ প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হাফেজ ইসমাইল হোসেনের সংবর্ধনা এবং আলেম-ওলামাদের সঙ্গে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় একথা বলেন। ফরিদুল হক খান বলেন, ‘প্রতিবছরই বিশ্বের মুসলিম দেশ সৌদি আরব, দুবাই, গাম্বিয়া, ইরান, মিশর, জর্ডান, তুরস্ক, আলজেরিয়া, পাকিস্তান, মালদ্বীপসহ বিভিন্ন দেশে অনুষ্ঠিত হিফজ, কিরাত, তাফসীর ও ইমাম মুবাল্লিগ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে প্রথম, দ্বিতীয়, তৃতীয় স্থানসহ বিভিন্ন স্তরে এদেশের প্রতিযোগীরা পুরস্কার অর্জন করছে। ১৯৯৪ সাল হতে ২০২৪ সাল পর্যন্ত এরূপ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে ১৯০ জনের বেশি প্রতিযোগী আন্তর্জাতিক পুরস্কার অর্জন করেছে। হাফেজদের এই অর্জন আমাদের দেশের জন্য অত্যন্ত গৌরবের।’

মতবিনিময় সভায় উপস্থিত আলেম, ওলামা ও শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে ধর্মমন্ত্রী বলেন, ‘হাফেজ ইসমাইল হোসেনের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে আপনাদেরকে আমন্ত্রণ জানানোর উদ্দেশ্য একটাই। সেটা হলো এই ইসলামপুর থেকে ইসমাইলের মতো অনেক অনেক ইসমাইল গড়ে তোলা যারা ইসলামপুরের মুখ উজ্জ্বল করবে। বাংলাদেশের মুখ উজ্জ্বল করবে। ইসমাইল যদি পারে তাহলে অন্যান্য হাফেজরা পারবে। ইসমাইলের ওস্তাদ যদি পারেন তাহলে অন্যান্য ওস্তাদরাও পারবেন। শুধু প্রয়োজন একাগ্রতা, নিষ্ঠা, অধ্যবসায় এবং অনুশীলন।’ ধর্মমন্ত্রী আরও বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আলেম-ওলামা সমাজকে অত্যন্ত সম্মান ও শ্রদ্ধা করেন। আপনাদের কাছ থেকে আমাদের কিছু প্রত্যাশা আছে। সেই প্রত্যাশা আমাদের ব্যক্তিগত কোনো স্বার্থ হাসিলের জন্য নয়। প্রত্যাশা দেশের জন্য, দেশের মানুষের জন্য। আমরা চাই এমন একটি দেশ যেখানে দুর্নীতি, মজুতদারি, কালোবাজারি ও মুনাফাখোর থাকবে না। মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ থাকবে না। এজন্য আপনাদেরকে এগিয়ে আসতে হবে। মানুষকে বোঝাতে হবে, ধর্মের বিধিবিধান জানাতে হবে। দেশ ভালো থাকলে আমি ভালো থাকবো, আপনিও ভালো থাকবেন। আমার সন্তান ভালো থাকবে, আপনার সন্তানও ভালো থাকবে।’

উপজেলা নির্বাহী অফিসার সিরাজুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় অন্যদের মধ্যে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এস এম জামাল আব্দুন নাছের, ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল খালেক আখন্দ, জামালপুর আইন কলেজের অধ্যক্ষ অ্যাড. আব্দুস ছালাম, ইসলামপুর এম এ সামাদ পারভেজ মেমোরিয়াল ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ জামাল আব্দুল নাসের চৌধুরী চার্লেস প্রমুখ বক্তৃতা করেন। ধর্মমন্ত্রী মো. ফরিদুল হক খান বলেছেন, ‘কুরআনের হাফেজদের মাধ্যমে মুসলিম বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হচ্ছে।’ তিনি আজ জামালপুর সকালে জেলার ইসলামপুরে ফরিদুল হক খান দুলাল অডিটোরিয়ামে আরটিভি আলোকিত কুরআন ২০২৪ প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হাফেজ ইসমাইল হোসেনের সংবর্ধনা এবং আলেম-ওলামাদের সঙ্গে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় একথা বলেন। ফরিদুল হক খান বলেন, ‘প্রতিবছরই বিশ্বের মুসলিম দেশ সৌদি আরব, দুবাই, গাম্বিয়া, ইরান, মিশর, জর্ডান, তুরস্ক, আলজেরিয়া, পাকিস্তান, মালদ্বীপসহ বিভিন্ন দেশে অনুষ্ঠিত হিফজ, কিরাত, তাফসীর ও ইমাম মুবাল্লিগ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে প্রথম, দ্বিতীয়, তৃতীয় স্থানসহ বিভিন্ন স্তরে এদেশের প্রতিযোগীরা পুরস্কার অর্জন করছে। ১৯৯৪ সাল হতে ২০২৪ সাল পর্যন্ত এরূপ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে ১৯০ জনের বেশি প্রতিযোগী আন্তর্জাতিক পুরস্কার অর্জন করেছে। হাফেজদের এই অর্জন আমাদের দেশের জন্য অত্যন্ত গৌরবের।’

মতবিনিময় সভায় উপস্থিত আলেম, ওলামা ও শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে ধর্মমন্ত্রী বলেন, ‘হাফেজ ইসমাইল হোসেনের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে আপনাদেরকে আমন্ত্রণ জানানোর উদ্দেশ্য একটাই। সেটা হলো এই ইসলামপুর থেকে ইসমাইলের মতো অনেক অনেক ইসমাইল গড়ে তোলা যারা ইসলামপুরের মুখ উজ্জ্বল করবে। বাংলাদেশের মুখ উজ্জ্বল করবে। ইসমাইল যদি পারে তাহলে অন্যান্য হাফেজরা পারবে। ইসমাইলের ওস্তাদ যদি পারেন তাহলে অন্যান্য ওস্তাদরাও পারবেন। শুধু প্রয়োজন একাগ্রতা, নিষ্ঠা, অধ্যবসায় এবং অনুশীলন।’ ধর্মমন্ত্রী আরও বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আলেম-ওলামা সমাজকে অত্যন্ত সম্মান ও শ্রদ্ধা করেন। আপনাদের কাছ থেকে আমাদের কিছু প্রত্যাশা আছে। সেই প্রত্যাশা আমাদের ব্যক্তিগত কোনো স্বার্থ হাসিলের জন্য নয়। প্রত্যাশা দেশের জন্য, দেশের মানুষের জন্য। আমরা চাই এমন একটি দেশ যেখানে দুর্নীতি, মজুতদারি, কালোবাজারি ও মুনাফাখোর থাকবে না। মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ থাকবে না। এজন্য আপনাদেরকে এগিয়ে আসতে হবে। মানুষকে বোঝাতে হবে, ধর্মের বিধিবিধান জানাতে হবে। দেশ ভালো থাকলে আমি ভালো থাকবো, আপনিও ভালো থাকবেন। আমার সন্তান ভালো থাকবে, আপনার সন্তানও ভালো থাকবে।’

উপজেলা নির্বাহী অফিসার সিরাজুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় অন্যদের মধ্যে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এস এম জামাল আব্দুন নাছের, ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল খালেক আখন্দ, জামালপুর আইন কলেজের অধ্যক্ষ অ্যাড. আব্দুস ছালাম, ইসলামপুর এম এ সামাদ পারভেজ মেমোরিয়াল ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ জামাল আব্দুল নাসের চৌধুরী চার্লেস প্রমুখ বক্তৃতা করেন।