আজ শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন দিন
জাতীয়, আঞ্চলিক, স্থানীয় পত্রিকাসহ অনলাইন পোর্টালে যে কোন ধরনের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন। মেসার্স রুকাইয়া এড ফার্ম -01711 211241

পাইকগাছায় মৎস্য আড়ৎ আধুনিকায়নে বরাদ্দ প্রায় ৪ কোটি টাকা

  • রিপোর্টার
  • আপডেট সময়: ১২:৩৭:৪৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৯ জুলাই ২০২৪
  • ২৪ বার পড়া হয়েছে

খুলনার পাইকগাছা মৎস্য আড়তদারি মার্কেট ইউরোপীয় ইউনিয়নের আদলে আধুনিকায়নের জন্য তিন কোটি ৭৩ লাখ টাকা বরাদ্দ দিয়েছে মৎস্য অধিদপ্তর। খুলনার প্রথম পৌরসভা পাইকগাছার শিবসা নদীর তীরে ২০০৫ সালে ৩২ জন সদস্য নিয়ে ৪৮ শতক সম্পত্তির ওপর এ আড়ৎ প্রতিষ্ঠিত হয়। যার বর্তমান আড়ৎ সংখ্যা ৭০টি। সদস্য সংখ্যা ৪৭৩ জন। মৎস্য আড়ৎদারি সমিতির ক্যাশিয়ার হারুন অর রশীদ বলেন, প্রতিদিন গড়ে অর্ধকোটিরও বেশি টাকার মাছ ও চিংড়ি বেচাকেনা হয় এ আড়তে। সর্বনিম্ন একটা আড়তে ৫০ হাজার টাকার মাছ প্রতিদিন বেচাকেনা হয়। যা দেশ-বিদেশের বিভিন্ন এলাকায় রপ্তানি হয়ে আসছে। পার্শ্ববর্তী দেশ ভারত থেকেও বেপারিরা এখানে মাছ কিনতে আসেন।

আড়ৎদারী সমিতির সভাপতি মো. জাকির হোসেন বলেন, আমাদের আড়তে প্রতিদিন ৫ শতাধিক লোক মাছ বেচাকেনায় জড়িত। জায়গা স্বল্পতা, যথেষ্ট উপযুক্ত পরিবেশ না থাকায় আমাদের অনেক কষ্ট পোহাতে হয়। উপযুক্ত পরিবেশ তৈরি, বরফকল স্থাপনসহ অবকাঠামোগত উন্নয়নের জন্য সরকার ৩ কোটি ৭৩ লাখ টাকা বরাদ্দ দিয়েছেন। একটি মডেল ও আধুনিকায়ন মৎস্য মার্কেটের জন্য বিশ্বব্যাংক অর্থায়ন করেছে। সাসটেইনেবল কোস্টাল ও মেরিন ফিশারিজ প্রজেক্টের মাধ্যমে বরফ মিল স্থাপন, পানি নিষ্কাশন ড্রেনেজ ব্যবস্থাসহ ১৪টি প্রকল্প রয়েছে। গত ২৬ মে ৯৫ লাখ ৩৫ হাজার ৩১৩ টাকার একটি চেক হস্তান্তর করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা সৈকত মল্লিক বলেন, ইউরোপীয় ইউনিয়নের আদলে পাইকগাছায় মৎস্য আড়তের মান উন্নয়নে মৎস্য অধিদপ্তরের অর্থায়ন করছে। যা সাসটেইনেবল কোস্টাল ও মেরিন ফিসারিজের একটা প্রজেক্ট।

ট্যাগস:

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

পাইকগাছায় মৎস্য আড়ৎ আধুনিকায়নে বরাদ্দ প্রায় ৪ কোটি টাকা

আপডেট সময়: ১২:৩৭:৪৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৯ জুলাই ২০২৪

খুলনার পাইকগাছা মৎস্য আড়তদারি মার্কেট ইউরোপীয় ইউনিয়নের আদলে আধুনিকায়নের জন্য তিন কোটি ৭৩ লাখ টাকা বরাদ্দ দিয়েছে মৎস্য অধিদপ্তর। খুলনার প্রথম পৌরসভা পাইকগাছার শিবসা নদীর তীরে ২০০৫ সালে ৩২ জন সদস্য নিয়ে ৪৮ শতক সম্পত্তির ওপর এ আড়ৎ প্রতিষ্ঠিত হয়। যার বর্তমান আড়ৎ সংখ্যা ৭০টি। সদস্য সংখ্যা ৪৭৩ জন। মৎস্য আড়ৎদারি সমিতির ক্যাশিয়ার হারুন অর রশীদ বলেন, প্রতিদিন গড়ে অর্ধকোটিরও বেশি টাকার মাছ ও চিংড়ি বেচাকেনা হয় এ আড়তে। সর্বনিম্ন একটা আড়তে ৫০ হাজার টাকার মাছ প্রতিদিন বেচাকেনা হয়। যা দেশ-বিদেশের বিভিন্ন এলাকায় রপ্তানি হয়ে আসছে। পার্শ্ববর্তী দেশ ভারত থেকেও বেপারিরা এখানে মাছ কিনতে আসেন।

আড়ৎদারী সমিতির সভাপতি মো. জাকির হোসেন বলেন, আমাদের আড়তে প্রতিদিন ৫ শতাধিক লোক মাছ বেচাকেনায় জড়িত। জায়গা স্বল্পতা, যথেষ্ট উপযুক্ত পরিবেশ না থাকায় আমাদের অনেক কষ্ট পোহাতে হয়। উপযুক্ত পরিবেশ তৈরি, বরফকল স্থাপনসহ অবকাঠামোগত উন্নয়নের জন্য সরকার ৩ কোটি ৭৩ লাখ টাকা বরাদ্দ দিয়েছেন। একটি মডেল ও আধুনিকায়ন মৎস্য মার্কেটের জন্য বিশ্বব্যাংক অর্থায়ন করেছে। সাসটেইনেবল কোস্টাল ও মেরিন ফিশারিজ প্রজেক্টের মাধ্যমে বরফ মিল স্থাপন, পানি নিষ্কাশন ড্রেনেজ ব্যবস্থাসহ ১৪টি প্রকল্প রয়েছে। গত ২৬ মে ৯৫ লাখ ৩৫ হাজার ৩১৩ টাকার একটি চেক হস্তান্তর করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা সৈকত মল্লিক বলেন, ইউরোপীয় ইউনিয়নের আদলে পাইকগাছায় মৎস্য আড়তের মান উন্নয়নে মৎস্য অধিদপ্তরের অর্থায়ন করছে। যা সাসটেইনেবল কোস্টাল ও মেরিন ফিসারিজের একটা প্রজেক্ট।