আজ রবিবার, ২১ জুলাই ২০২৪, ৬ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম:
Logo সাতক্ষীরা থানায় হামলার চেষ্টা, পুলিশের লাঠিচার্জ ও ফাঁকা গুলি Logo যশোরে ডিবি পুলিশের অভিযানে পিস্তলসহ যুবক আটক Logo মোটরসাইকেল নিয়ে দ্বন্দ্বে ঘরে ঢুকে যুবককে গুলি করে হত্যা, গ্রেপ্তার ২ Logo সাতক্ষীরায় কোটা বিরোধীদের সাথে ছাত্রলীগের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া Logo কোটা বহালে হাইকোর্টের রায় বাতিল চেয়ে লিভ টু আপিল Logo সাতক্ষীরায় কোটা আন্দলনকারী ও ছাত্রলীগ মুখোমুখি অবস্থানে Logo বেনা‌পো‌লে ঘোষণা বহির্ভূত ১৫ হাজার ৭৫০ কেজি সালফিউরিক এসিড জব্দ Logo ‘বাবাকে হত্যা করেছি আমাকে গ্রেপ্তার করুন’ Logo সাতক্ষীরায় দুই রোহিঙ্গা নারীসহ মানব পাচারকারী আটক Logo প্রশ্নফাঁসে জড়িত কুমিল্লার সোহেলের বোন শিক্ষা অফিসার, ভাবি শিক্ষক
বিজ্ঞাপন দিন
জাতীয়, আঞ্চলিক, স্থানীয় পত্রিকাসহ অনলাইন পোর্টালে যে কোন ধরনের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন। মেসার্স রুকাইয়া এড ফার্ম -01711 211241

সালমানকে হত্যা পরিকল্পনার চাঞ্চল্যকর তথ্য প্রকাশ্যে

  • রিপোর্টার
  • আপডেট সময়: ০১:২১:২৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ২ জুন ২০২৪
  • ৬৪ বার পড়া হয়েছে

বলিউড ভাইজান সালমান খান। সিনেপ্রেমীদের উপহার দিয়েছেন একেরপর এক সুপার হিট সিনেমা। তিনি যেখানেই যান, সেখানেই থাকে ভক্তের উচ্ছ্বাস, উত্তাল ভিড়। তবে বেশ কয়েক বছর ধরেই তাকে নিয়ে শঙ্কিত রয়েছেন তার পরিবার ও ভক্তরা। হবেই না কেন, তাকে হত্যার চেষ্টায় করা হয়েছে কত রকম কারসাজি। কিছুদিন আগেও মুম্বাইয়ের বান্দ্রা এলাকায় তার গ্যালাক্সি অ্যাপার্টমেন্টের সামনে গুলি চালায় দুষ্কৃতকারীরা। এরপর থেকেই যেন নড়েচড়ে বসে মুম্বাই পুলিশ। এবার প্রকাশ্যে এলো বলিপাড়ার এই সুপারস্টারকে হত্যা পরিকল্পনার চাঞ্চল্যকর তথ্য। বাড়ি নয়, খোদ সালমানের গাড়িতেই হামলা চালানোর পরিকল্পনা করেছিল দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় মুম্বাই পুলিশ ইতোমধ্যেই চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে। জানা যায়, গ্রেপ্তারকৃতরা সন্ত্রাসী গ্যাং বিষ্ণু গ্রুপের সদস্য। ভারতীয় গণমাধ্যম সূত্র থেকে জানা যায়, এবার বিষ্ণু গ্রুপের পরিকল্পনা ছিল সালমানকে প্রাণে মেরে ফেলা। সে কারণেই পাকিস্তানি নাগরিক এক অস্ত্র সরবরাহকারীর সঙ্গে ভিডিও কলে যোগাযোগ করে অভিযুক্ত এ গ্রুপের সদস্যরা। তারপর একে৪৭-এর জন্য বায়না করে তারা।

মুম্বাই পুলিশ সূত্রে আরও জানা যায়, বেশ কিছুদিন ধরেই সালমানের ওপর নজর রাখছিল এ গ্যাংয়ের সব সদস্য। নায়কের ওপর হামলা চালাতে না কি শিশুদের ব্যবহার এবং হামলার পর নৌকায় করে শ্রীলঙ্কায় পালিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা ছিল তাদের। ১৯৯৮ সালে সালমান খানের ওপর যোধপুরে ‘হাম সাথ সাথ হ্যায়’ ফিল্মের শুটিং চলাকালীন কৃষ্ণসার হরিণ হত্যার অভিযোগ ওঠে। তারপর এই নায়কের নামে মামলা করে স্থানীয় সম্প্রদায়ের লোকেরা দোষী সাব্যস্ত করে ৫ বছরের সাজা দিয়েছিলেন ভারতের রাজস্থান রাজ্যের যোধপুর আদালত। হরিণ হত্যার মামলায় জামিন পেয়ে কারাগার থেকে মুক্তি পায় এ অভিনেতা। তার মুক্তিতে ভক্ত ও অনুসারীরা স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেললেও খুশি হতে পারেনি বিষ্ণু গ্যাংয়ের সদস্যরা।

বিষ্ণু সম্প্রদায় বিশ্বাস করে গাছ কাটা ও প্রাণীহত্যা মহাপাপ। কৃষ্ণসার হরিণকে বলতে গেলে তারা পূজা করে। তাই এই সম্প্রদায় বিরল প্রজাতির এই হরিণ হত্যা কিছুতেই মেনে নিতে পারেনি। এরপর থেকেই শুরু হয় তাদের নানা পরিকল্পনা। কীভাবে সালমানকে বধ করা যায়। হিট তালিকায় সবার ওপরের দিকে নাম রয়েছে বলিউড ভাইজানের। তবে এ নিয়ে মোটেও শঙ্কিত ছিলেন না ভারতীয় এ সুপারস্টার।

ট্যাগস:

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

সাতক্ষীরা থানায় হামলার চেষ্টা, পুলিশের লাঠিচার্জ ও ফাঁকা গুলি

সালমানকে হত্যা পরিকল্পনার চাঞ্চল্যকর তথ্য প্রকাশ্যে

আপডেট সময়: ০১:২১:২৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ২ জুন ২০২৪

বলিউড ভাইজান সালমান খান। সিনেপ্রেমীদের উপহার দিয়েছেন একেরপর এক সুপার হিট সিনেমা। তিনি যেখানেই যান, সেখানেই থাকে ভক্তের উচ্ছ্বাস, উত্তাল ভিড়। তবে বেশ কয়েক বছর ধরেই তাকে নিয়ে শঙ্কিত রয়েছেন তার পরিবার ও ভক্তরা। হবেই না কেন, তাকে হত্যার চেষ্টায় করা হয়েছে কত রকম কারসাজি। কিছুদিন আগেও মুম্বাইয়ের বান্দ্রা এলাকায় তার গ্যালাক্সি অ্যাপার্টমেন্টের সামনে গুলি চালায় দুষ্কৃতকারীরা। এরপর থেকেই যেন নড়েচড়ে বসে মুম্বাই পুলিশ। এবার প্রকাশ্যে এলো বলিপাড়ার এই সুপারস্টারকে হত্যা পরিকল্পনার চাঞ্চল্যকর তথ্য। বাড়ি নয়, খোদ সালমানের গাড়িতেই হামলা চালানোর পরিকল্পনা করেছিল দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় মুম্বাই পুলিশ ইতোমধ্যেই চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে। জানা যায়, গ্রেপ্তারকৃতরা সন্ত্রাসী গ্যাং বিষ্ণু গ্রুপের সদস্য। ভারতীয় গণমাধ্যম সূত্র থেকে জানা যায়, এবার বিষ্ণু গ্রুপের পরিকল্পনা ছিল সালমানকে প্রাণে মেরে ফেলা। সে কারণেই পাকিস্তানি নাগরিক এক অস্ত্র সরবরাহকারীর সঙ্গে ভিডিও কলে যোগাযোগ করে অভিযুক্ত এ গ্রুপের সদস্যরা। তারপর একে৪৭-এর জন্য বায়না করে তারা।

মুম্বাই পুলিশ সূত্রে আরও জানা যায়, বেশ কিছুদিন ধরেই সালমানের ওপর নজর রাখছিল এ গ্যাংয়ের সব সদস্য। নায়কের ওপর হামলা চালাতে না কি শিশুদের ব্যবহার এবং হামলার পর নৌকায় করে শ্রীলঙ্কায় পালিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা ছিল তাদের। ১৯৯৮ সালে সালমান খানের ওপর যোধপুরে ‘হাম সাথ সাথ হ্যায়’ ফিল্মের শুটিং চলাকালীন কৃষ্ণসার হরিণ হত্যার অভিযোগ ওঠে। তারপর এই নায়কের নামে মামলা করে স্থানীয় সম্প্রদায়ের লোকেরা দোষী সাব্যস্ত করে ৫ বছরের সাজা দিয়েছিলেন ভারতের রাজস্থান রাজ্যের যোধপুর আদালত। হরিণ হত্যার মামলায় জামিন পেয়ে কারাগার থেকে মুক্তি পায় এ অভিনেতা। তার মুক্তিতে ভক্ত ও অনুসারীরা স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেললেও খুশি হতে পারেনি বিষ্ণু গ্যাংয়ের সদস্যরা।

বিষ্ণু সম্প্রদায় বিশ্বাস করে গাছ কাটা ও প্রাণীহত্যা মহাপাপ। কৃষ্ণসার হরিণকে বলতে গেলে তারা পূজা করে। তাই এই সম্প্রদায় বিরল প্রজাতির এই হরিণ হত্যা কিছুতেই মেনে নিতে পারেনি। এরপর থেকেই শুরু হয় তাদের নানা পরিকল্পনা। কীভাবে সালমানকে বধ করা যায়। হিট তালিকায় সবার ওপরের দিকে নাম রয়েছে বলিউড ভাইজানের। তবে এ নিয়ে মোটেও শঙ্কিত ছিলেন না ভারতীয় এ সুপারস্টার।