আজ শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞাপন দিন
জাতীয়, আঞ্চলিক, স্থানীয় পত্রিকাসহ অনলাইন পোর্টালে যে কোন ধরনের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন। মেসার্স রুকাইয়া এড ফার্ম -01711 211241

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব স্কলার অ্যাওয়ার্ড পাচ্ছেন বুটেক্সের সোহাগ

  • রিপোর্টার
  • আপডেট সময়: ১২:৪৯:০৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ২ জুন ২০২৪
  • ৬৬ বার পড়া হয়েছে

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব স্কলার-২০২৩ অ্যাওয়ার্ডের জন্য চূড়ান্তভাবে নির্বাচিত হয়েছেন বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুটেক্স) সাবেক শিক্ষার্থী সোহাগ চন্দ্র দাস। বুধবার (২৯ মে) প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্টের দেওয়া বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানা যায়। সোহাগ চন্দ্র দাস বুটেক্সের ওয়েট প্রসেস ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন এবং বর্তমানে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বুয়েট) কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে স্নাতকোত্তর পর্যায়ে অধ্যয়নরত আছেন। এবার স্নাতকোত্তর পর্যায়ে সারাদেশ থেকে আবেদনকারী শিক্ষার্থীদের মধ্য হতে ১৫টি অধিক্ষেত্রে ২১ জনকে অ্যাওয়ার্ডের জন্য বাছাই করা হয়। স্নাতকোত্তর পর্যায়ের অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের যাদের স্নাতক পর্যায়ে ৩ দশমিক ৭০ পয়েন্ট ফলাফল অর্জন করেছেন তারা আবেদনের সুযোগ পায়। আবেদনকারীর স্কুল-কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষাজীবনে সব একাডেমিক ট্রান্সক্রিপ্ট, সার্টিফিকেট, সহশিক্ষা কার্যক্রম, কাজের অভিজ্ঞতার ভিত্তিতে চুড়ান্ত বাছাই করা হয়।

অ্যাওয়ার্ড প্রাপ্তির বিষয়ে সোহাগ চন্দ্র দাস বলেন, আমি অত্যন্ত গর্বিত ও সন্তুষ্ট যে সমগ্র দেশের মধ্যে টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং অধিক্ষেত্রে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর স্কলার অ্যাওয়ার্ড পাচ্ছি। আন্ডারগ্র্যাড স্টাডি, ফলাফল, গবেষণা, সহশিক্ষা কার্যক্রম ও চূড়ান্ত ভাইবার মাধ্যমে আমাকে বাছাই করা হয়। এক্ষেত্রে আমার প্রথম স্ট্রং পয়েন্ট ছিল গবেষণা। যদিও ভাইবা এতটা সহজ ছিল না। এতে ৫ জন সচিব ও ২ জন সাইন্টিস্টের সামনে নিজের গবেষণার বিষয়টা প্রকাশ করাও একটা চ্যালেঞ্জ ছিল। এই ব্যাপারটি আমার পথচলায় অনুপ্রাণিত করবে এবং মানুষের জন্য কাজ করায় সহায়তা করবে।

উল্লেখ্য, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শিক্ষা ও গবেষণা ভাবনায় পরবর্তী প্রজন্মকে উজ্জীবিত করার লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্টের উদ্যোগে ২০২১ সালে প্রথমবারের মতো দেশের অভ্যন্তরে স্নাতকোত্তর পর্যায়ে বিভিন্ন অধিক্ষেত্রে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের উন্মুক্ত আবেদনের প্রেক্ষিতে প্রতিযোগিতার মাধ্যমে মেধাবী শিক্ষার্থীদেরকে এই অ্যাওয়ার্ডের জন্য নির্বাচিত করা হয়।

ট্যাগস:

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব স্কলার অ্যাওয়ার্ড পাচ্ছেন বুটেক্সের সোহাগ

আপডেট সময়: ১২:৪৯:০৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ২ জুন ২০২৪

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব স্কলার-২০২৩ অ্যাওয়ার্ডের জন্য চূড়ান্তভাবে নির্বাচিত হয়েছেন বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুটেক্স) সাবেক শিক্ষার্থী সোহাগ চন্দ্র দাস। বুধবার (২৯ মে) প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্টের দেওয়া বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানা যায়। সোহাগ চন্দ্র দাস বুটেক্সের ওয়েট প্রসেস ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন এবং বর্তমানে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বুয়েট) কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে স্নাতকোত্তর পর্যায়ে অধ্যয়নরত আছেন। এবার স্নাতকোত্তর পর্যায়ে সারাদেশ থেকে আবেদনকারী শিক্ষার্থীদের মধ্য হতে ১৫টি অধিক্ষেত্রে ২১ জনকে অ্যাওয়ার্ডের জন্য বাছাই করা হয়। স্নাতকোত্তর পর্যায়ের অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের যাদের স্নাতক পর্যায়ে ৩ দশমিক ৭০ পয়েন্ট ফলাফল অর্জন করেছেন তারা আবেদনের সুযোগ পায়। আবেদনকারীর স্কুল-কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষাজীবনে সব একাডেমিক ট্রান্সক্রিপ্ট, সার্টিফিকেট, সহশিক্ষা কার্যক্রম, কাজের অভিজ্ঞতার ভিত্তিতে চুড়ান্ত বাছাই করা হয়।

অ্যাওয়ার্ড প্রাপ্তির বিষয়ে সোহাগ চন্দ্র দাস বলেন, আমি অত্যন্ত গর্বিত ও সন্তুষ্ট যে সমগ্র দেশের মধ্যে টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং অধিক্ষেত্রে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর স্কলার অ্যাওয়ার্ড পাচ্ছি। আন্ডারগ্র্যাড স্টাডি, ফলাফল, গবেষণা, সহশিক্ষা কার্যক্রম ও চূড়ান্ত ভাইবার মাধ্যমে আমাকে বাছাই করা হয়। এক্ষেত্রে আমার প্রথম স্ট্রং পয়েন্ট ছিল গবেষণা। যদিও ভাইবা এতটা সহজ ছিল না। এতে ৫ জন সচিব ও ২ জন সাইন্টিস্টের সামনে নিজের গবেষণার বিষয়টা প্রকাশ করাও একটা চ্যালেঞ্জ ছিল। এই ব্যাপারটি আমার পথচলায় অনুপ্রাণিত করবে এবং মানুষের জন্য কাজ করায় সহায়তা করবে।

উল্লেখ্য, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শিক্ষা ও গবেষণা ভাবনায় পরবর্তী প্রজন্মকে উজ্জীবিত করার লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্টের উদ্যোগে ২০২১ সালে প্রথমবারের মতো দেশের অভ্যন্তরে স্নাতকোত্তর পর্যায়ে বিভিন্ন অধিক্ষেত্রে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের উন্মুক্ত আবেদনের প্রেক্ষিতে প্রতিযোগিতার মাধ্যমে মেধাবী শিক্ষার্থীদেরকে এই অ্যাওয়ার্ডের জন্য নির্বাচিত করা হয়।