আজ রবিবার, ২১ জুলাই ২০২৪, ৬ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম:
Logo সাতক্ষীরা থানায় হামলার চেষ্টা, পুলিশের লাঠিচার্জ ও ফাঁকা গুলি Logo যশোরে ডিবি পুলিশের অভিযানে পিস্তলসহ যুবক আটক Logo মোটরসাইকেল নিয়ে দ্বন্দ্বে ঘরে ঢুকে যুবককে গুলি করে হত্যা, গ্রেপ্তার ২ Logo সাতক্ষীরায় কোটা বিরোধীদের সাথে ছাত্রলীগের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া Logo কোটা বহালে হাইকোর্টের রায় বাতিল চেয়ে লিভ টু আপিল Logo সাতক্ষীরায় কোটা আন্দলনকারী ও ছাত্রলীগ মুখোমুখি অবস্থানে Logo বেনা‌পো‌লে ঘোষণা বহির্ভূত ১৫ হাজার ৭৫০ কেজি সালফিউরিক এসিড জব্দ Logo ‘বাবাকে হত্যা করেছি আমাকে গ্রেপ্তার করুন’ Logo সাতক্ষীরায় দুই রোহিঙ্গা নারীসহ মানব পাচারকারী আটক Logo প্রশ্নফাঁসে জড়িত কুমিল্লার সোহেলের বোন শিক্ষা অফিসার, ভাবি শিক্ষক
বিজ্ঞাপন দিন
জাতীয়, আঞ্চলিক, স্থানীয় পত্রিকাসহ অনলাইন পোর্টালে যে কোন ধরনের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন। মেসার্স রুকাইয়া এড ফার্ম -01711 211241

ডিগ্রি ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনের বিরোধিতা ও বিদ্বেষী কার্যক্রমের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

  • রিপোর্টার
  • আপডেট সময়: ০৮:১৮:২২ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৪ মে ২০২৪
  • ৩৬ বার পড়া হয়েছে

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি : কারিগরি শিক্ষাকে মর্যাদা প্রদান ও সমাজে গ্রহণযোগ্যতা বৃদ্ধির প্রয়াসে শিক্ষা মন্ত্রণালয় ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং শিক্ষাকে বিএসসি (পাস) সমমান মর্যাদা প্রদানের উদ্যোগ গ্রহণের প্রেক্ষিতে ডিগ্রি ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনের যুক্তিহীন বিরোধিতা ও বিদ্বেষী কার্যক্রমের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের আব্দুল মোতালেব মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত পাঠ করেন, আইডিইবি জেলা নির্বাহী কমিটির সাধারণ সম্পাদক এম এম এ আবু জায়েদ বিন গফুর। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, দক্ষ মানবসম্পদ উন্নয়নে সরকার কারিগরি ও বৃত্তিমূলক শিক্ষায় ভর্তির হার ২০৩০ সালে ৩০% ও ২০৪০ সালের মধ্যে ৫০-৬০% এ উন্নীত করার পরিকল্পনা নিয়েছে। এই উদ্যোগ বাস্তবায়নে কারিগরি ও বৃত্তিমূলক শিক্ষাকে শিক্ষার মূল¯্রােতধারায় নিয়ে আসার ঘোষণা দিয়ে ৬ষ্ঠ থেকে ৮ম শ্রেণী পর্যন্ত ১০০ নম্বরের একটি করে কারিগরি বিষয় বাধ্যতামূলক করে শিক্ষা দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। মাধ্যমস্তরের প্রকৌশল শিক্ষা বিস্তারের লক্ষ্যে ২৩ টি জেলায় একটি করে বিশ্বমানের পলিটেকনিক এবং মেয়েদের জন্য আরো ৪টি আন্তর্জাতিক মানের পলিটেকনিক স্থাপন করার কাজ শুরু করেছেন। কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তরের মাধ্যমে ৪টি ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ প্রতিষ্ঠিত হয়েছে, যার ২টি শুধু ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারদের জন্য নির্ধারিত করে দিয়েছে সরকার। এছাড়া সরকার বৈদেশিক কর্মসংস্থান ও প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে দক্ষ জনবল তৈরির উদ্দেশ্যে শতাধিক টেকনিক্যাল ট্রেনিং সেন্টার স্থাপন করছে। দেশে চালু ৫০টি সরকারি পলিটেকনিকের শিক্ষা কার্যক্রম যথাযথভাবে সম্পন্ন করা ও দক্ষ ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার গড়ে তোলার লক্ষ্যে ১২৫০০ শিক্ষক পদ সৃষ্টি করে নিয়োগ শুরু করেছেন। অন্যদিকে টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজের আরো ৬৫০০ শিক্ষক পদ সৃষ্টিপূর্বক একইভাবে নিয়োগ দেয়া শুরু করেছেন। ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারদের বিএসসি (পাস) কোর্সের সমমানের মর্যাদা প্রদান করার বিষয়ে মতামত ও সুপারিশ দেয়ার জন্য ১০ সদস্যের একটি জাতীয় কমিটি গঠন করেছেন।
এই কারিগরি শিক্ষা সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গ প্রকৌশল কর্মক্ষেত্রে ডেস্ক ও ফিল্ড ইঞ্জিনিয়ারিং-এ কাজ করে থাকেন। যেখানে ডিজাইন, প্ল্যানিং, গবেষণায় ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে বিএসসি ইঞ্জিনিয়াররা ডেস্কে এবং এক্সিকিউশন, সুপারভিশন, অপারেশন, পরিচালক ও মেইনটেন্যান্স কাজে ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে কাজ ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারগণ করে যাচ্ছেন। দেশের ইঞ্জিনিয়ারিং কর্মকান্ডের ৮৫% কাজ এদেশের ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারগণ করে থাকেন। বিএসসি ইঞ্জিনিয়ার ও ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার উভয়েই ইঞ্জিনিয়ার, যা রাষ্ট্রীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত। ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারগণ বিএসসি (পাস) সমমান মর্যাদা পাওয়ার যোগ্যতা যৌক্তিকভাবেই রাখেন। সার্বিক বিষয়টি ইতোমধ্যে আইডিইবি কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটি সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে জাতির নিকট স্পষ্ট করে দেশপ্রেমিক সাংবাদিক বন্ধুদের মাধ্যমে সরকারের নিকট নি¤েœর দাবি উপস্থাপন করেছেন।
শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগ বাস্তবায়ন ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দেয়া প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নসহ আইডিইবি’র পক্ষে উপস্থাপিত উপরোল্লিখিত দাবি বাস্তবায়নের উদ্দেশ্যে ইতোমধ্যে আইডিইবি’র পক্ষে মাসব্যাপী কর্মসূচি ঘোষণা করেছে। সেই কর্মসূচির অংশ হিসেবে আজ আমরা আপনাদের উপস্থিতিতে জেলা নির্বাহী কমিটির পক্ষে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেছি। কেন্দ্রীয়ভাবে ইতোমধ্যে ঘোষিত কর্মসূচির আলোকে আমরা সাতক্ষীরা জেলা শাখার পক্ষে নি¤েœাক্ত কর্মসূচি ঘোষণা করছি। কমসূচি সমূহ: ১২-১৮ মে’২৪ পর্যন্ত আইডিইবি জেলা নির্বাহী কমিটির উদ্যোগে সকল পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের  বাংলাদেশ কারিগরি ছাত্র পরিষদ (বাকাছাপ), বাংলাদেশ পলিটেকনিক শিক্ষক সমিতি, পেশাজীবী অন্যান্য সংগঠন, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ ও সাংবাদিক সংগঠনসহ সমাজের গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গের সাথে মতবিনিময় ও জনগণকে অবহিতকরণ। ১৯-২৩ মে’২৪ পর্যন্ত জেলার সকল ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স সার্ভিস এসোসিয়েশনের উদ্যোগে স্ব স্ব প্রধান দপ্তরে প্রতিবাদ সভা ও শিক্ষামন্ত্রী সমীপে স্মারকলিপি প্রদান। ৩০ মে’২৪ জেলা শাখার উদ্যোগে ছাত্র শিক্ষক ও ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারদের সমন্বয়ে প্রতিবাদ সভা এবং সভা শেষে বিক্ষোভ মিছিল ও জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে শিক্ষামন্ত্রী সমীপে স্মারকলিপি প্রদান। এসময় উপস্থিত ছিলেন, সভাপতি প্রকৌ. মো: আব্দুর রশিদ, সহ-সভাপতি প্রকৌ. আবেদুর রহমান, প্রকৌ. কামরুল আকতার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক প্রকৌ. গোলাম মোস্তফা, সাংগঠনিক সম্পাদক প্রকৌ.শিমুল, কাউন্সিলর প্রকৌ. অধ্যক্ষ মো: রফিকুল ইসলাম, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক প্রকৌ. অনিমেষ দেব নাথ, প্রকৌ. ইন্সট্যাক্টর আব্দুল আলিম। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, প্রকৌ. রবিউল ইসলাম, প্রকৌ. ফারুক আহমেদ।

ট্যাগস:

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

সাতক্ষীরা থানায় হামলার চেষ্টা, পুলিশের লাঠিচার্জ ও ফাঁকা গুলি

ডিগ্রি ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনের বিরোধিতা ও বিদ্বেষী কার্যক্রমের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

আপডেট সময়: ০৮:১৮:২২ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৪ মে ২০২৪

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি : কারিগরি শিক্ষাকে মর্যাদা প্রদান ও সমাজে গ্রহণযোগ্যতা বৃদ্ধির প্রয়াসে শিক্ষা মন্ত্রণালয় ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং শিক্ষাকে বিএসসি (পাস) সমমান মর্যাদা প্রদানের উদ্যোগ গ্রহণের প্রেক্ষিতে ডিগ্রি ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনের যুক্তিহীন বিরোধিতা ও বিদ্বেষী কার্যক্রমের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের আব্দুল মোতালেব মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত পাঠ করেন, আইডিইবি জেলা নির্বাহী কমিটির সাধারণ সম্পাদক এম এম এ আবু জায়েদ বিন গফুর। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, দক্ষ মানবসম্পদ উন্নয়নে সরকার কারিগরি ও বৃত্তিমূলক শিক্ষায় ভর্তির হার ২০৩০ সালে ৩০% ও ২০৪০ সালের মধ্যে ৫০-৬০% এ উন্নীত করার পরিকল্পনা নিয়েছে। এই উদ্যোগ বাস্তবায়নে কারিগরি ও বৃত্তিমূলক শিক্ষাকে শিক্ষার মূল¯্রােতধারায় নিয়ে আসার ঘোষণা দিয়ে ৬ষ্ঠ থেকে ৮ম শ্রেণী পর্যন্ত ১০০ নম্বরের একটি করে কারিগরি বিষয় বাধ্যতামূলক করে শিক্ষা দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। মাধ্যমস্তরের প্রকৌশল শিক্ষা বিস্তারের লক্ষ্যে ২৩ টি জেলায় একটি করে বিশ্বমানের পলিটেকনিক এবং মেয়েদের জন্য আরো ৪টি আন্তর্জাতিক মানের পলিটেকনিক স্থাপন করার কাজ শুরু করেছেন। কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তরের মাধ্যমে ৪টি ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ প্রতিষ্ঠিত হয়েছে, যার ২টি শুধু ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারদের জন্য নির্ধারিত করে দিয়েছে সরকার। এছাড়া সরকার বৈদেশিক কর্মসংস্থান ও প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে দক্ষ জনবল তৈরির উদ্দেশ্যে শতাধিক টেকনিক্যাল ট্রেনিং সেন্টার স্থাপন করছে। দেশে চালু ৫০টি সরকারি পলিটেকনিকের শিক্ষা কার্যক্রম যথাযথভাবে সম্পন্ন করা ও দক্ষ ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার গড়ে তোলার লক্ষ্যে ১২৫০০ শিক্ষক পদ সৃষ্টি করে নিয়োগ শুরু করেছেন। অন্যদিকে টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজের আরো ৬৫০০ শিক্ষক পদ সৃষ্টিপূর্বক একইভাবে নিয়োগ দেয়া শুরু করেছেন। ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারদের বিএসসি (পাস) কোর্সের সমমানের মর্যাদা প্রদান করার বিষয়ে মতামত ও সুপারিশ দেয়ার জন্য ১০ সদস্যের একটি জাতীয় কমিটি গঠন করেছেন।
এই কারিগরি শিক্ষা সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গ প্রকৌশল কর্মক্ষেত্রে ডেস্ক ও ফিল্ড ইঞ্জিনিয়ারিং-এ কাজ করে থাকেন। যেখানে ডিজাইন, প্ল্যানিং, গবেষণায় ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে বিএসসি ইঞ্জিনিয়াররা ডেস্কে এবং এক্সিকিউশন, সুপারভিশন, অপারেশন, পরিচালক ও মেইনটেন্যান্স কাজে ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে কাজ ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারগণ করে যাচ্ছেন। দেশের ইঞ্জিনিয়ারিং কর্মকান্ডের ৮৫% কাজ এদেশের ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারগণ করে থাকেন। বিএসসি ইঞ্জিনিয়ার ও ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার উভয়েই ইঞ্জিনিয়ার, যা রাষ্ট্রীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত। ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারগণ বিএসসি (পাস) সমমান মর্যাদা পাওয়ার যোগ্যতা যৌক্তিকভাবেই রাখেন। সার্বিক বিষয়টি ইতোমধ্যে আইডিইবি কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটি সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে জাতির নিকট স্পষ্ট করে দেশপ্রেমিক সাংবাদিক বন্ধুদের মাধ্যমে সরকারের নিকট নি¤েœর দাবি উপস্থাপন করেছেন।
শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগ বাস্তবায়ন ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দেয়া প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নসহ আইডিইবি’র পক্ষে উপস্থাপিত উপরোল্লিখিত দাবি বাস্তবায়নের উদ্দেশ্যে ইতোমধ্যে আইডিইবি’র পক্ষে মাসব্যাপী কর্মসূচি ঘোষণা করেছে। সেই কর্মসূচির অংশ হিসেবে আজ আমরা আপনাদের উপস্থিতিতে জেলা নির্বাহী কমিটির পক্ষে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেছি। কেন্দ্রীয়ভাবে ইতোমধ্যে ঘোষিত কর্মসূচির আলোকে আমরা সাতক্ষীরা জেলা শাখার পক্ষে নি¤েœাক্ত কর্মসূচি ঘোষণা করছি। কমসূচি সমূহ: ১২-১৮ মে’২৪ পর্যন্ত আইডিইবি জেলা নির্বাহী কমিটির উদ্যোগে সকল পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের  বাংলাদেশ কারিগরি ছাত্র পরিষদ (বাকাছাপ), বাংলাদেশ পলিটেকনিক শিক্ষক সমিতি, পেশাজীবী অন্যান্য সংগঠন, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ ও সাংবাদিক সংগঠনসহ সমাজের গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গের সাথে মতবিনিময় ও জনগণকে অবহিতকরণ। ১৯-২৩ মে’২৪ পর্যন্ত জেলার সকল ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স সার্ভিস এসোসিয়েশনের উদ্যোগে স্ব স্ব প্রধান দপ্তরে প্রতিবাদ সভা ও শিক্ষামন্ত্রী সমীপে স্মারকলিপি প্রদান। ৩০ মে’২৪ জেলা শাখার উদ্যোগে ছাত্র শিক্ষক ও ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারদের সমন্বয়ে প্রতিবাদ সভা এবং সভা শেষে বিক্ষোভ মিছিল ও জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে শিক্ষামন্ত্রী সমীপে স্মারকলিপি প্রদান। এসময় উপস্থিত ছিলেন, সভাপতি প্রকৌ. মো: আব্দুর রশিদ, সহ-সভাপতি প্রকৌ. আবেদুর রহমান, প্রকৌ. কামরুল আকতার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক প্রকৌ. গোলাম মোস্তফা, সাংগঠনিক সম্পাদক প্রকৌ.শিমুল, কাউন্সিলর প্রকৌ. অধ্যক্ষ মো: রফিকুল ইসলাম, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক প্রকৌ. অনিমেষ দেব নাথ, প্রকৌ. ইন্সট্যাক্টর আব্দুল আলিম। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, প্রকৌ. রবিউল ইসলাম, প্রকৌ. ফারুক আহমেদ।