1. admin@dainikajkerbani.com : admin :
শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৩:১৭ অপরাহ্ন

সাতক্ষীরার কালিগঞ্জে সংখ্যালঘু পরিবারের জমি ও মৎস্য হ্যাচারী জবর দখলের অভিযোগ

  • Update Time : বুধবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০২৩
  • ৯৮ Time View
jomi

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি :-

সাতক্ষীরায় কালিগঞ্জ উপজেলার পল্লীতে বসত বাড়ি ও মৎস্য হ্যাচারী ভাংচুর করে জমি দখলের অভিযোগ উঠেছে। ভুক্তভোগী কালিগঞ্জ উপজেলার নলতা ইউনিয়নের বিলকাজলা গ্রামের চিত্তরঞ্জন সরকারের পুত্র রবিন্দ্রনাথ সরকার জানায় আমি দীর্ঘদিন থেকে বিল কাজলা এলাকায় রাস্তা সংলগ্ন বসত বাড়িতে মৎস্য হ্যাচারী স্থাপন করে জীবিকা নির্বাহ করিয়া আসিতেছি। যে জমিটির মূল মালিক ছিল জমিদার কানাইলাল সরকার। যাহার মৌজা-বিল কাজলা, এস.এ খতিয়ান-১৮৬, বর্তমান হাল দাগ-৬১৫, যাহার জমির পরিমান-১৯.৩৫ শতক। উক্ত জমি সরকারের খাস খতিয়ান ১/১ খতিয়ানে দীর্ঘ ৩০ বৎসর পূর্বে উক্ত জমির মধ্যে একই গ্রামের মৃত সুজাত আলী সরদারের পুত্র আব্বাস সরদার ও মৃত হানিফ সরদারের পুত্র নাছিম সরদারের কাছ থেকে ১০ শতক জমি দখল স্বত্ত্ব ক্রয় করে মৎস্য হ্যাচারী ও স্থায়ী ভাবে বসবাস করিয়া আসিতেছিলাম। উক্ত নার্সারীতে আমি সহ কয়েকজন দিনমজুর কাজ করতাম। আমি সরকারী নিয়ম নীতি মেনে ০৬ নং নলতা ইউনিয়ন পরিষদ থেকে ট্রেড লাইসেন্স গ্রহণ করি। যাহার নং-৭০৪/২৩-২৪, বইয়ের পাতা নং-১৭০৪, তারিখ-১৪/০৯/২০২৩ ইং। এছাড়া উক্ত ১৯.৬৫ শতক জমি এলাকার বিভিন্নজন বন্দোবস্ত নিয়ে মাছের ব্যবসা করে আসছে।

যে জমিটি সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক ২০২১ সালে ১১ই জুলাই ৭-০১-২০০১-১৪৬০ স্মারকে ঐ এলাকার কুচল উদ্দীন গাইনের পুত্র মোঃ আবুল হোসেন গাইনের পরিবারের সদস্যদের বিভিন্ন নামে বন্দোবস্ত দিয়েছিলেন। ভুক্তভোগী জানায় উক্ত জমি নিয়ে সাতক্ষীরা আদালতে অর্পিত সম্পত্তি প্রত্যাবর্তন ট্রাইবুনাল ও যুগ্ম জেলা জজ ১ম আদালতে মামলা চলমান, মামলা নং-৯২২/১২। এছাড়া উভয় পক্ষের গোলাম নবি ও গোলাম রায়হান নামের দুই ব্যক্তি উক্ত জমি নিয়ে মামলা করেছে , যাহার মামলা নং-৩/২০ ও ২/২০ কিন্তু উক্ত জমির উপর নজর পড়ে নলতার বিল কাজলা গ্রামের বদিউল্লা গাজীর পুত্র নজরুল ইসলামের। সে ইতিপূর্বে এরাকার একাধিক ব্যক্তির উপর মামলা-হামলা চালিয়ে স্বল্প দামে জমি ক্রয় করেছে ও কাউকে টাকা না দিয়ে জোর পূর্বক তাড়িয়ে দিয়েছে। সম্প্রতি সে আমার বসত বাড়ি ও মৎস্য হ্যাচারীর একটি তঞ্চকী দলিল বানিয়ে গত ১লা ডিসেম্বর দুপুরে আমার পাকা বসত বাড়ি ও মৎস্য হ্যাচারীতে হামলা চালিয়ে জোর পূর্বক জবর দখল করে নেয়। আমরা প্রাণ ভয়ে ঘটনাস্থল হইতে পালিয়ে যাই।

সে উক্ত জায়গায় সকল স্থাপনা গুড়িয়ে দিয়ে মাটি ভরাট কার্যক্রম শুরু করেছে এবং সে বিভিন্ন সময়ে আমাদের জীবন নাশের হুমকি দিয়ে যাচ্ছে। আমি সংখ্যালঘু পরিবার হওয়ায় ভয়ে মুখ খুলতে পারছিনা। এ ব্যাপারে আমি সাতক্ষীরা আদালতে মামলা দায়ের করেছি যেটি বর্তমানে চলমান আছে। এ ব্যাপারে নলতা ইউনিয়নের ০৭ নং ওয়ার্ডে ইউপি সদস্য আহম্মাদ উল্লাহ গাজী জানায় “আমি জানি উক্ত জমিটি রবীন্দ্রনাথ সরকার দীর্ঘদিন যাবৎ ভোগ দখল করে আসছে, উক্ত জমিটি তার”। ০৬ নং নলতা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আজিজুর রহমান জানায় উক্ত জমিটিতে রবীন্দ্রনাথ সরকার পজেশন নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বসবাস ও হ্যাচারী তৈরী করে ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে।

হঠাৎ একটি পক্ষ উক্ত জমিটি দখল ও ভাংচুর করে তাকে অনেক ক্ষতিগ্রস্ত করেছে। এ ব্যাপারে দখলকারী নজরুল ইসলাম জানায় আমি উক্ত জমিটি ক্রয় করেছি। উক্ত জমিটি আমার। আমি তাদের কাছে জমিটি লীজ দিয়েছিলাম। তাই এখন আমি আমার জমিটি ফেরত নিয়েছি। এলাকার একাধিক ব্যক্তি জানায় এই জমিটি নিয়ে দীর্ঘদিন উভয় পক্ষের মধ্যে বিরোধ চলছে। যে কোন সময় অত্র স্থানে ঘটতে পারে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ। যেহেতু রবীন্দ্রনাথ সরকার দীর্ঘদিন উক্ত জমিতে বসবাস ও ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে সেজন্য সে যাহাতে জমিটি ফেরত পায় সেজন্য জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার সহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষন করছি।

 

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2018-2023 দৈনিক আজকের বানী
Theme Customized By BreakingNews