1. admin@dainikajkerbani.com : admin :
শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০২:৫৯ অপরাহ্ন

সাতক্ষীরায় জমি দখলের চেষ্টা ও হয়রানি অব্যাহত, প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা

  • Update Time : শুক্রবার, ২৪ নভেম্বর, ২০২৩
  • ১৪৭ Time View
jome dokol

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি:

সাতক্ষীরা জেলার শ্যামনগরের পল্লীতে দীর্ঘ ৬০ বৎসরের ভোগ দখলীয় জমি থেকে একটি সংখ্যালঘু পরিবারকে উচ্ছেদের পায়তারা । আদালতে মামলা চলমান থাকা কালীন উক্ত জমি অন্যত্র রেজিষ্ট্রি জনমনে মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। ভুক্তভোগী
শ্যামনগর উপজেলার ৯ নং বুড়ি গোয়ালীনি ইউনিয়নের আবাদচন্ডীপুর গ্রামের অভিমান্য
মন্ডলের পুত্র উপনন্দ মন্ডল ও এলাকাবাসী জানায়, আমার পূর্বপুরুষরা এস.এ খতিয়ানের মালিক ৬
জন। তাদের মধ্যে শুক চরণ মন্ডল, নীল মণি মন্ডল, শিশুবর মন্ডল, হরমোহন মন্ডল, প্রিয় নাথ মন্ডল , ক্ষীরধর
মন্ডল। একই গ্রামের তারাপদ মন্ডল , অভিমন্ন মন্ডল, কর্ণধর মন্ডল, মনিন্দ্র মন্ডল এর নিকট থেকে
১৯৬২ ও ১৯৬৩ সালে ৪৯১,৪৯২, ৮৮৪ নং দলিলে ১৯৭২ সালে যাহার দলিল নং-৫৪৮৪, রেজিষ্ট্রির
তারিখ-১৭/০৯/১৯৭২ ইং এ বিনিময় সূত্রে প্রাপ্ত হয়ে ভোগ দখল করে আসিতেছি। তৎকালীন
সময় থেকে ১৪২৮ বঙ্গাব্দ পর্যন্ত অত্র জমির সরকারি খাজনা পরিশোধ করিয়া আসিতেছি।
যাহার নামজারিও আমাদের নামে। নামজারি নং-১০০৫৮৩। ৩৭৩ নং খতিয়ানে সাবেক ৮৫৮ দাগে
যে জমিটি নিয়ে দেওয়ানী আদালতে মামলা চলছে যাহার মামলা নং-৪৮/১৯, বাদী-রাধা পদ মন্ডল।
উক্ত জমিটিতে সেটেলমেন্ট অফিসে মামলা নং-৩৭৩৪৭/১১।

মামলার বাদী চারজন থাকলেও ২ জনের নামে উক্ত জমি রেকর্ড হয়। বাকী দুইজনের নামে রেকর্ড হয়নি। মামলা করার পর উক্ত জমি
আমাদের দখলে আছে। কিন্তু মনিন্দ্র মন্ডল, রাধাপদ মন্ডল ১একর ৫২ শতক জমি তাদের নামে রেকর্ড
না হওয়ায় এ মামলাটি করেন। উক্ত জমি কেরর্ড হয় নিতাই মন্ডল, গোষ্ঠ মন্ডল এর নামে। এই
রেকর্ড পাওয়ার পর দখলে চলে আসে তারা। ভুক্তভোগী রাধাপদ মন্ডল বাদী হয়ে স্থানীয় সংসদ সদস্য
এস.এম জগলুল হায়ধার বরাবর ১৭/০৬/২০১৯ ইং তারিখে একটি অভিযোগ করলে স্থানীয়
শালিসে বিবাদীদেরকে জমি থেকে সরে যেতে বলেন এবং ভুক্তভোগীরা জমিতে দখলে যায়। উক্ত
সময় থেকে দখলে থাকার পর গত ০৬/০২/২০২২ ইং তারিখে শ্যামনগর উপজেলা মহিলা ভাইস
চেয়ারম্যান খালেদা আইয়ুব (ডলি) বিবাদীদের পক্ষে অতি উৎসাহী হয়ে গোবিন্দ মন্ডলকে
দিয়ে একটি অভিযোগ করান।

এবং সেই বিচারে বাদী পক্ষকে বিভিন্ন ভাবে হয়রানী করতে থাকেন। তখন ভুক্তভোগী শ্যামনগর উপজেলা চেয়ারম্যান এস.এম আতাউর রহমান দোলন এর নিকট আরেকটি আবেদন করে যে, উক্ত জমিটি নিয়ে আদালতে মামলা চলমান আছে। বিষয়টি উপজেলা
চেয়ারম্যান জানতে পেরে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানকে বিচার কার্য স্থগিত রাখতে বলেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পরবর্তীতে এলাকায় স্থানীয় প্রাইমারী স্কুলে এক পক্ষকে নিয়ে শালিস বসিয়ে জমি বিবাদীরা পাইবে বলে একতরফা রায় দিয়ে চলে যায়। পরদিন ভোরে বহিরাগত একাধিক লোকজন নিয়ে জমি ও ঘের দখল করে মাছ লুঠ করে নেয় বিবাদীপক্ষ।
ভুক্তভোগীরা কোন উপায় না পেয়ে গত ১৯/০২/২০২২ ইং তারিখে বাদী হয়ে শ্যামনগর থানায়
একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করেন। পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে বহিরাগতরা পালিয়ে যায় এবং

ভুক্তভোগীরা আবার দখলে নিয়ে নেয় কিন্তু থানা মামলাটি গ্রহণ করেননি। এরপরও ভুক্তভোগীদের
সায়েস্তা করতে মহিলা ভাইসচেয়ারম্যানের সহযোগিতায় বিবাদীপক্ষ গত ২৭/০৬/২০২২ ইং
তারিখে ১০ (দশ) জনকে আসামী করে শ্যামনগর থানায় একটি মামলা দাখিল করেন। যাহার মামলা
নং-৫৮। ভুক্তভোগীরা থানায় মামলা দায়ের করতে না পেরে সাতক্ষীরা বিশেষ ট্রাইবুনাল আদালতে
গত ২১/০৪/২০২২ ইং তারিখে একটি মামলা দায়ের করেন, যাহার মামলা নং-১১২২। কিন্তু
বিবাদীদের মামলা দায়ের করার পর আরো ক্ষিপ্ত হয়ে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ও এলাকার কিছু
সুবিধাভোগী লোক উক্ত ১ একর ৫২ শতক জমি শ্যামনগর উপজেলা বংশীপুর গ্রামে আকবর
সরদারের পুত্র আব্দুল আহাদের নিকট রেজিষ্ট্রি মূলে বিক্রয় করেন। যাহার দলিল নং-৩৮৫৩, তারিখ-
০৩/০৭/২০২২ ইং।

ভুক্তভোগীরা আরও জানায় আমার পূর্বপুরুষেরা ১৯৬৯/৭০ সালে বিনিময়
সূত্রে যাহার নং- ৬২৭/৬৯-৭০। এস.এ মালিক-হর মোহন মন্ডল সহ স্ত্রী ও দুই পুত্র লস্কর গংদের
নিকট থেকে এই জমিটি বিনিময় হয় যাহার কারণে এই জমিটি নিঃস্বত্ত¡ প্রমানিত হয়
বলে ভুক্তভোগীরা জানায় । এ ব্যাপারে উপজেলা চেয়ারম্যান এস.এম আতাউর রহমান দোলনের
কাছে জানতে চাইলে তখন তিনি জানিয়েছিলেন এ ব্যাপারে আমার কাছে একটি
অভিযোগ এসেছিল সেটি আমি মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানের কাছে দায়িত্ব দিয়েছিলাম।
পরে জানতে পারি আদালতে মামলা চলমান রহিয়াছে। সেজন্য আমি এই শালীশি বৈঠক বন্ধ করতে
বলেছি। যেখানে আদালতে মামলা চলছে , আদালত যে রায় দেয় সেই রায় সকলকে মেনে নেওয়া
উচিত। তবে আমি যতদূর জেনেছি এই জমিটির প্রকৃত মালিক অভিমান্য মন্ডল গংরাই।
বর্তমানে বিবাদী পক্ষ বার বার জমি দখলে নিতে না পেরে হয়রানি চালিয়ে যাচ্ছে। ভুক্তভোগী
কোন উপায় না পেয়ে গত ২০২২ সালের ৫ই নভেম্বর ডিআইজি বরাবর একটি আবেদন করেন।
ডিআইজি তৎকালীন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ক্রাইম ম্যানেজমেন্ট সাতক্ষীরা পুলিশ সুপার ও
অফিসার ইনচার্জ শ্যামনগরকে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য নির্দেশ দেন। এর পরও বিবাদী একের পর এক
হয়রানী করে যাচ্ছে।

গত ২৩ জুলাই ২০২৩ ইং তারিখে উচ্চ আদালতে একটি রিট পিটিশ
দাখিল করেন। যাহার নং-৮৭৬৫ এবং উচ্চ আদালত থেকে ৬ মাসের নিষেধাজ্ঞার একটি কাগজ
নিয়ে আসে। পরে বাদী পক্ষ পূর্বের আদেশ স্থগিত চেয়ে গত ০৪ সেপ্টেম্বর তারিখে মহামান্য
সুপ্রিম কোর্টে একটি আপিল করে। যার অপিল নং-২৬০৩। বিজ্ঞ মহামান্য সুপ্রিম কোর্ট
আগের আদেশটি স্থগিত করে দেয়। উক্ত আদেশের কপি বাদী খুলনা সেটেলমেন্ট জোনাল
অফিসে দাখিল করলে সংশ্লিষ্ট দপ্তরে বাদী পক্ষ রেকর্ড সংশোধন করে দেয়। উক্ত রায় ও পুলিশ সুপার
সহ প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞার পরেও বিবাদী পক্ষ একের পর এক হয়রানি করে জমি দখল ও খুন জখমের
হুমকি দিয়ে যাচ্ছে বাদীপক্ষকে।

চলতি মাসের ৫ই নভেম্বর বাদীর ঘেরের বাসা ভাংচুর করে
অগ্নিসংযোগ করে ও ঘেরের মাছ লুট করে নিয়ে উল্টো মিথ্যা নাটক সাজিয়ে থানায়
অভিযোগ করে। বাদী বিষয়টি সাতক্ষীরা সুযোগ্য পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপ কামনা করলে পুলিশ
সুপার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সজীব আহমেদকে উভয় পক্ষকে নিয়ে উক্ত বিষয়টি নিয়ে বসার
জন্য নির্দেশ দেয়। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার উভয় পক্ষকে নিয়ে বসে সকলকে শান্তি শৃঙ্খলা রক্ষা

করে থাকতে বলে। যেহেতু আদালতে উক্ত জমি নিয়ে মামলা বিচারাধীন আছে। এ ব্যাপারে এলাকাবাসীরা জানায় আহাদ আলী জমিটি ক্রয় করেছে শুনেছি সে এখানে আসার পর থেকে এলাকায় সন্ত্রাসী কর্মকান্ড সহ বিভিন্ন অপকর্ম চালিয়ে যাচ্ছে। তখন শ্যামনগর
থানার এস.আই রেজাউল ইসলাম সরেজমিন গিয়ে তদন্ত করছেন বলে জানা গেছে।

এ বিষয়ে বিবাদী আহাদ আলীর নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন আমি জমি ক্রয় করেছি জমির মালিক আমি এবং জমির সকল কাগজ পত্র আছে। এলাকার সচেতন মহল ও ভুক্তভোগীরা যাহাতে ঐ এলাকায় কোন প্রকার অপ্রিতর ঘটনা না ঘাটে ও প্রকৃত জমির মালিকগণ জমিটিতে শান্তি শৃঙ্খলার সাথে ভোগ দখল করতে পারে সে জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সহ জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপারের সু-দৃষ্টি কামনা করেছেন ভুক্তভোগী।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2018-2023 দৈনিক আজকের বানী
Theme Customized By BreakingNews